রাজা রামমোহন রায়ের ২৫০তম জন্মবার্ষিকী

ভারতীয় উপমহাদেশের নবজাগরণের পথিকৃৎ, সমাজ সংস্কারক ও লেখক রাজা রামমোহন রায়ের জন্মদিন আজ। তার জন্ম ১৭৭২ সালের ২২ মে (মতান্তরে ১৭৭৪ সালের ২২ মে) হুগলি জেলার রাধানগর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত ব্রাহ্মণ পরিবারে। তিনি সামাজিক পুনর্গঠন, ধর্মীয় সংস্কার আন্দোলন ও ব্রাহ্মসমাজের প্রতিষ্ঠাতা এবং বাঙালি দার্শনিক।

তিনি সবচেয়ে বেশি বিখ্যাত হয়েছেন হিন্দু সমাজের সতীদাহ প্রথা বিলুপ্ত করার প্রচেষ্টার জন্য। রামমোহন সহমরণ প্রথার বিরুদ্ধে আইনের জন্য চেষ্টা করেন। হিন্দুশাস্ত্রের প্রমাণ দাখিল করে দেখান যে শাস্ত্রে সহমরণের নির্দেশ নেই। এ বিষয়ে তিনি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ১৮২৯ খ্রিস্টাব্দে গভর্নর জেনারেল লর্ড উইলিয়াম বেন্টিঙ্কের সময় সতীদাহ প্রথা বিধিবহির্ভূত ঘোষণা করা হয়। এ বিধান সর্বোচ্চ আদালত পর্যন্ত বহাল থাকে। 

রামমোহন ১৮০৫ থেকে ১৮১৪ সাল পর্যন্ত ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানিতে কর্মরত ছিলেন। কয়েক বছর পর তিনি চাকরি ছেড়ে কলকাতার স্থায়ী বাসিন্দা হন এবং প্রকাশ্যে তাঁর সংস্কার প্রচেষ্টা শুরু করেন। বাংলা ভাষায় বেদান্তের তিনিই প্রথম ভাষ্যকার। এই সঙ্গে একেশ্বর উপাসনার পথ দেখাতে ‘আত্মীয়সভা’ প্রতিষ্ঠা করেন (১৮১৫)। এ সভাকেই পরে তিনি ‘ব্রাহ্মসমাজ’ নাম ও রূপ দেন (১৮২৮)। তিনি ইংরেজি শিক্ষার প্রসারে নিজ ব্যয়ে ১৮২৩ সালে স্কুলও প্রতিষ্ঠা করেন।

ব্রিস্টলের শহরতলি স্টেপলটনের বিচহাউসে মেনিনজাইটিস রোগে আক্রান্ত হয়ে রাজা রামমোহন রায় পরলোকগমন করেন ১৮৩৩ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর।