থানায় আত্মসমর্পণের ১২ ঘণ্টার মধ্যেই ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

মোহাম্মদ বেলাল ১৩ মামলার আসামি ছিলেন। চট্টগ্রাম নগরীর খুলশী থানায় আত্মসমর্পণ করেছিলেন গতকাল বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর)। এর ১২ ঘণ্টার মধ্যেই কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন ৪৩ বছর বয়সী এই আসামি।

গতরাত ১টার দিপুকে নগরীর খুলশী থানার জালালাবাদ পাহাড়ে এই ‘বন্দুকযুদ্ধ’ হয় বলে দাবি করেছে পুলিশ।

বেলাল নগরীর আমবাগানে রেলওয়ে লোকোশেড কলোনির আব্দুল কাদেরের ছেলে। তিনি কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার মোহনপুর গ্রামের বাসিন্দা।

খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রণব চৌধুরীর ভাষ্যমতে, বুধবার দুপুর ১টার দিকে বেলাল নিজেই থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাত ১টার দিকে বেলালকে অস্ত্র উদ্ধারে নিয়ে যাওয়া হয় জালালাবাদ পাহাড়ে।

এ সময় বেলালকে ছিনিয়ে নিতে তার সহযোগী একদল সন্ত্রাসী পুলিশের ওপর হামলা করে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। প্রায় ১৫-২০ মিনিট গোলাগুলির পর পিছু হটে বেলালের সহযোগীরা।

এক পর্যায়ে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ বেলালকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। এ সময় সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি ও তিন রাউন্ড কার্তুজ এবং চারটি রামদা উদ্ধার করা হয়েছে।

ওসি প্রণবের দাবি, বেলাল ছিল পুলিশের তালিকাভুক্ত ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ শীর্ষ সন্ত্রাসী। তার বিরুদ্ধে খুলশী থানায় ১১টি মামলা রয়েছে। নগরীর অন্য থানায় রয়েছে আরো দুইটি। সরকারি জমি দখল, চাঁদাবাজি, খুনসহ বিভিন্ন অপরাধের সঙ্গে জড়িত ছিলেন তিনি।