‘এখনও সময় আছে নিশিরাতের নির্বাচন বাতিল করুন’

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী সরকারের উদ্দেশে বলেছেন, এখনও সময় আছে, নিশিরাতের নির্বাচন বাতিল ঘোষণা করুন। নতুন নির্বাচনের আয়োজন করুন। তা না হলে রাজপথে জনবিস্ফোরণ রোধ করতে পারবেন না। পালানোর গলিপথও খুঁজে পাবে না।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

রিজভী বলেন, রাজধানীতে বিএনপির শোভাযাত্রায় মানুষের উর্মিমুখর স্রোত নেমেছিল। শ্লোগান ধ্বণিত হয়েছে প্রস্তুতি, প্রতিবাদ ও প্রতিরোধে। ঘরবাড়ি ছেড়ে ব্যথিত, বঞ্চিত ও অপমানিত জনগণ বিএনপির কর্মসূচিতে সংহতি জানাতে নেমে এসেছিল রাজপথে। মানুষের জোয়ারে ঢাকা শহর প্রায় স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল। লাখ লাখ মানুষ রাজপথ কাঁপানো শ্লোগানে সরকারের প্রতি স্বতঃস্ফূর্ত অনাস্থা জানিয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারকে আমি বলব- কালবিলম্ব না করে দেশনেত্রীকে দ্রুত নিঃশর্ত মুক্তি দিন। এই অনির্বাচিত নিশিরাতের নির্বাচনের সংসদ ভেঙে দিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন ঘোষণা করুন।

অ্যাডভোকেট রিজভী বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ঘিরে সারা দেশে মানুষের মধ্যে দলের প্রতি যে আবেগ-উচ্ছ্বাস পরিলক্ষিত হয়েছে তা অভাবনীয় এবং সেইসাথে অবৈধ সরকারের প্রতি যে তীব্র ক্ষোভ ও প্রতিবাদ ধ্বণিত হয়েছে তা অবৈধ শাসকগোষ্ঠীর উপলব্ধির জন্য সতর্কবার্তা। আওয়ামী আইনশৃঙ্খলাবাহিনী বিরোধী দল ও মত নির্মূলের ভাবধারায় অনুপ্রাণিত।

রিজভী অভিযোগ করে বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আইনশৃঙ্খলাবাহিনী দেশের বিভিন্ন স্থানে আমাদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র‌্যালি ও সমাবেশে বাধা দিয়েছে। কোনো কোনো জায়গায় হামলা করে পণ্ড করে দিয়েছে। মামলা দিয়েছে, গ্রেপ্তার ও নির্যাতন করেছে আমাদের নেতাকর্মীদেরকে। আমরা নিশিরাতের অনির্বাচিত সরকারের এই জুলুমের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস উপস্থিত ছিলেন।