আজ শুরু টেস্ট বিশ্বকাপ

ক্রিকেটের সবচেয়ে ঐতিহ্যবাহী লড়াই অ্যাশেজের ম্যাচ দিয়ে আজ ১ আগস্ট বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে টেস্ট ক্রিকেটের বিশ্বকাপ। পাঁচ ম্যাচ অ্যাশেজ সিরিজের প্রথটিতে কাল মুখোমুখি হচ্ছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। এ ম্যাচ দিয়ে টেস্ট ক্রিকেটের এক নতুন অধ্যায় শুরু হতে যাচ্ছে। টেস্ট ক্রিকেট নতুনভাবে পথচলাকে জয় দিয়ে স্মরনীয় করে রাখতে চায় দুই দল। বার্মিংহামে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টায় শুরু হবে অ্যাশেজ টেস্টের প্রথমটি।

১৮৭৭ সালের ১৫ মার্চ টেস্ট ক্রিকেটের জন্ম। মেলবোর্নে ওই ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিলো ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। ৪৫ রানের জয় দিয়ে টেস্ট ক্রিকেটের যাত্রা শুরু করেছিলো অজিরা। এরপর আরও সাতটি টেস্ট ম্যাচ খেলে ফেলে দুই দল। প্রাচীন কালের ওই ম্যাচগুলোতে জমজমাট লড়াই করেছে উভয়েই ।

তবে ১৮৮২ সালের ২৮ আগস্ট লন্ডনের কেনিংটন ওভালে একটি দুই দিনের ম্যাচে অংশ নেয় ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া। ওই ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং বেছে নেয় অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ইনিংসে ৬৩ রানে অল-আউট হয় অজিরা। জবাবে ১০১ রান তুলে গুটিয়ে যায় ইংল্যান্ড। ফলে ৩৮ রানে পিছিয়ে থেকে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। দ্বিতীয় ইনিংসেও সুবিধা করতে পারেনি অজিরা। ১২২ রানে ইনিংস শেষ হয় অস্ট্রেলিয়ার। ফলে ম্যাচ জয়ের জন্য ৮৫ রানের টার্গেট পায় ইংল্যান্ড। কিন্তু এই রান স্পর্শ করতে পারেনি ইংলিশরা। মাত্র ৭৭ রানে ইংল্যান্ড গুটিয়ে গেলে ৭ রানে অবিস্মরনীয় এক ম্যাচ জিতে নেয় অস্ট্রেলিয়া।

ইংল্যান্ড এমন লজ্জার পরাজয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়ে সেদেশের গণমাধ্যম। ফলে ইংল্যান্ডের জনপ্রিয় সংবাদপত্র ‘দ্যা স্পোর্টিং টাইমস’ তাদের প্রতিবেদনে জাতীয় দলের ক্রিকেট সম্পর্কে লিখে- ‘১৮৮২ সালের ২৯ আগস্ট ইংলিশ ক্রিকেটকে চিরস্মরনীয় করে রাখল ইংল্যান্ড। গভীর দুঃখের সাথে বন্ধুরা এমন লজ্জা মেনে নিয়েছে। ইংলিশ ক্রিকেটকে ভস্মীভূত করা হয়েছে এবং ছাইগুলো অস্ট্রেলিয়াকে প্রদান করেছে।’

এরপর ওই সফরে কিছু নারী দর্শক ইংল্যান্ড অধিনায়ককে কিছু ছাই স্তুপাকারে প্রদান করে। পাত্রে রক্ষিত ছাই ইংল্যান্ডের ক্রিকেটের মৃত্যুস্বরূপ প্রতীকী অর্থেই দেয়া হয়েছিল। আর সেখান থেকেই আসে ‘অ্যাশেজ’ নাম-এর সূূত্রপাত হয়। ইংরেজিতে ‘অ্যাশেজ’ এর বাংলা অর্থ ‘ছাই’ বা ‘ভস্ম’।

আর ওই ম্যাচ থেকেই ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার সিরিজ পায় ‘অ্যাশেজে’র নামকরন। ১৮৮২-৮৩ সালে প্রথম অনুষ্ঠিত হয় অ্যাশেজ সিরিজ। আগের ম্যাচে লজ্জার হারের পরই ঘুড়ে দাঁড়ায় ইংল্যান্ড। অ্যাশেজের প্রথম তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজটি ২-১ ব্যবধানে জিতে নেয় ইংল্যান্ড। এরপর থেকেই ‘এ্যাশেজ’ নামে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড টেস্ট সিরিজ শুরু করে।

তবে এবারের অ্যাশেজ সিরিজটি পাচ্ছে অন্যরকম এক মর্যাদা। কারণ ওয়ানডে-টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের জমজমাট যুগে টেস্ট ক্রিকেটকে জনপ্রিয় করে তোলার পরিকল্পনা করছে আইসিসি। আগামী দুই বছরের জন্য টেস্ট ক্রিকেটকে নিয়ে নতুন নকশা কষে আইসিসি। শুরু করছে প্রথমবারের মত আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ বা টেস্ট বিশ্বকাপ। ১ আগস্ট ২০১৯ থেকে ৩০ এপ্রিল ২০২১ সাল পর্যন্ত ২৭টি সিরিজে ৭১টি টেস্ট খেলবে ৯টি দল। ৩০ এপ্রিল ২০২১-এর শেষে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দুই দল লর্ডসে টেস্ট বিশ্বকাপের ফাইনাল।

এমন সব নতুনত্বের মধ্যে নিজেদের জমজমাট লড়াইটা বেশ ভালোভাবেই করবে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। সেটি বলার অপেক্ষা রাখে না। কারণ সদ্যই দ্বাদশ বিশ্বকাপের শিরোপা জয় করেছে ইংল্যান্ড। প্রথমবারের মত ওয়ানডে বিশ্বকাপের শিরোপা জয় করা ইংল্যান্ড বেশ ফুরফুরা মেজাজেই রয়েছে। ইংল্যান্ডের মত ফুরফুরা মেজাজে রয়েছে অস্ট্রেলিয়াও। কারণ ওয়ানডে বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফরমেন্স। সেমিফাইনাল থেকে বাদ পড়লেও তাদের বর্তমান পারফর্মেন্স আশা জাগাচ্ছে।