দিয়া মির্জার ডিভোর্স

বলিউড অভিনেত্রী দিয়া মির্জা ‘লাভ ব্রেক আপ জিন্দেগি’ ছবিতে একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে পরিচালক ও ব্যবসায়ী সাহিল সাঙ্গার সাথে ঘনিষ্ঠতা বেড়ে যায়। সেই ঘনিষ্ঠতাকেই স্বীকৃতি দিতেই তারা বিয়ে করেছিলেন। এখন তারা আলাদা হয়ে যাচ্ছেন। দিয়া মির্জা ও সাহিলের যৌথ বিবৃতি এলো সোশ্যাল হ্যান্ডেলের মাধ্যমে।

বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) দুপুরে দিয়া মির্জার অ্যাকাউন্ট থেকে লেখা হয়েছে, দীর্ঘ ১১ বছর আমরা একসাথে ছিলাম। এখন আমরা আলাদা হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা বন্ধু রয়েছি, ভালোবাসা এবং শ্রদ্ধার সাথে একে অপরের জন্য থাকবো। যদিও আমাদের জার্নিটা আমাদের বিভিন্ন পথে নিয়ে যেতে পারে, একে অপরের সাথে আমাদের লেনদেনগুলোর জন্য কৃতজ্ঞ।

তারা বলেন, আমরা আমাদের পরিবার এবং আমাদের বন্ধুদের সমস্ত ভালোবাসা এবং বোঝার জন্য ও মিডিয়াকর্মীদের সহায়তার জন্য তাদের ধন্যবাদ জানাই। এই মুহূর্তে আমাদের গোপনীয়তার প্রয়োজনীয়তার জন্য অনুরোধ করছি। আমরা এ বিষয়ে আর কোনও মন্তব্য করব না।

২০০১ সালে ‘রেহেনা হে তেরে দিলমে’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে বলিউডে পা রাখলেও দিয়া মির্জার ক্যারিয়ার সু-প্রতিষ্ঠিত হয় নি। বেশ কয়েকটি ছবিতে অভিনয় করেও প্রথম সারিতে পৌঁছার প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে যান তিনি। পরে অনেকদিন বাদে ‘ লাভ ব্রেক আপ জিন্দেগি ’ ছবিতে অভিনয় করে সাফলতা না পেলেও জীবন সঙ্গীকে খুঁজে পেয়েছিলেন দিয়া মির্জা।