মশা নিধনে লন্ডন থেকে প্রধানমন্ত্রীকে নির্দেশনা দিতে হচ্ছে, সরকারি কর্মকর্তারা কী করছেন?

রাজধানীতে ডেঙ্গু মশা মারতে সিটি করপোরেশনের গড়িমসিতে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেছেন, ‘প্রশাসন দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হচ্ছে বলেই বিচার বিভাগকে হস্তক্ষেপ করতে হচ্ছে।’

বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ বুধবার এ অসন্তোষ প্রকাশ  করেন। সারা দেশে আদালতে বিচারক, আইনজীবী ও আদালত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিরাপত্তা নিয়ে করা এক রিট আবেদনের ওপর শুনানিতে এ অসন্তোষ প্রকাশ করা হয়।

আদালত বলেন, ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়া রোধে দুই সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে ফেব্রুয়ারিতে ডেকে তাঁদেরকে সতর্ক করেছিলাম। বলেছিলাম, মশা নিধনে এখন থেকেই ব্যবস্থা নিতে হবে। কিন্তু উনারা গা (আমলে না নেওয়া) করলেন না। ২-৩ জন মারা যাওয়ার পর ভাসাভাসা কথা বললেন। কিন্তু এখনতো ডেঙ্গু সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

আদালত বলেন, এখনতো তিনটি জেলা ছাড়া সারাদেশে ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে। এখন শেষ পর্যায়ে এসে যদি তাদের নড়া-চড়া শুরু হয় তাহলে সাধারণ জনগণ কোথায় যাবে? প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসার জন্য লন্ডনে গেছেন। সেখান থেকে তাকে নির্দেশনা দিতে হচ্ছে। তাহলে সরকারি কর্মচারীরা কী করছেন? তাদের গাড়ি-বাড়ি, বেতন-ভাতা সবই হয় জনগণের করের টাকায়। কিন্তু জনগণ কাঙ্খিত সেবা পাচ্ছে না। আদালত বলেন, আমরা কথা বললে বলা হয়, অনেক বেশি বলছি। কিন্তু প্রশাসন দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হচ্ছে বলেই বিচার বিভাগকে হস্তক্ষেপ করতে হচ্ছে।

এ সময় রাষ্ট্রপক্ষে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এ বি এম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার। আদালতের মন্তব্যের পর তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ডেঙ্গু নিয়ে সিটি করপোরেশনের কার্যক্রমে আদালত অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। আদালত বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী বিদেশে চিকিৎসা নিতে গেছেন। প্রশাসন ঠিকমতো কাজ না করায় সেখান থেকেও তাঁকে হস্তক্ষেপ করতে হচ্ছে।