ফের আন্দোলনে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা

সমস্যা সমাধানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কর্তৃপক্ষের আশ্বাস বাস্তবায়ন না হওয়ায় আবারও আন্দোলনে নেমেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন শিক্ষার্থীরা। এসময় তারা পাঁচ দফা দাবি উপস্থাপন করেন। সেই সঙ্গে অনিশ্চিত ক্যারিয়ার থেকে উদ্ধারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

আন্দোলনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীরা হলেন- ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল সরকারি কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজ ও তিতুমীর কলেজ।

আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী আবু বকর বলেন, সময়মতো পরীক্ষা না নেওয়া, ফলাফল প্রকাশে বিলম্ব, বিনা নোটিশে নতুন নিয়ম কার্যকর, একই বিষয়ে গণহারে ফেল, খাতার সঠিক মূল্যায়ন না হওয়া, সিলেবাসের বাইরে প্রশ্ন করাসহ নানা সমস্যা তৈরি হয়েছে। এসব বিষয়ে কর্তৃপক্ষকে জানানোর পরও সমস্যার সমাধান হয়নি।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হওয়ার পর থেকেই সাত কলেজে নেমে এসেছে কালো অধ্যায়। বিশ্ববিদ্যালয়ের আর কোনো আশ্বাস আমরা শুনতে চাই না। আমরা আমাদের সমস্যার সমাধান চাই।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পাঁচ দফা দাবি:

ফলাফল প্রকাশের ৯০ দিনের মধ্যে সব বিভাগের ত্রুটিমুক্ত ফল প্রকাশ করা, সাত কলেজ পরিচালনার জন্য স্বতন্ত্র প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ, অনার্স, মাস্টার্স, ডিগ্রির সব বর্ষের ফলাফলে অকৃতকার্য হওয়ার কারণ প্রকাশসহ খাতার পুনর্মূল্যায়ন করা, সিলেবাস অনুযায়ী মানসম্মত প্রশ্নপত্র প্রণয়নসহ উত্তরপত্র মূল্যায়ন সাত কলেজের শিক্ষকের মাধ্যমে করা, সেশনজট নিরসনে একাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রকাশসহ ক্রাশ প্রোগ্রাম চালু করা।