ভিকারুননিসায় অধ্যক্ষ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল

রাজধানীর ভিকারুননিসা স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার এই নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ থেকে আদেশ জারি করা হয়।

আদেশে বলা হয়, যারা এই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ছিলেন তারা আর ভবিষ্যতে কোনো নিয়োগ প্রক্রিয়ায় থাকতে পারবেন না।

এর আগে নিয়োগ পরীক্ষায় অনিয়মের অভিযোগে গত ২৯ এপ্রিল রাজধানীর খ্যাতনামা এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক বিভাগ।

বৃহস্পতিবার জারি করা আদেশে বলা হয়, গত ২৬ এপ্রিল অনুষ্ঠিত ভিকারুননিসা নুন স্কুল অ্যান্ড কলেজে অধ্যক্ষ নিয়োগ প্রক্রিয়া যথাযথ না হওয়ায় এ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করে অধিকতর বিশ্বাসযোগ্য ও বিতর্কমুক্ত করে অধ্যক্ষ নিয়োগের লক্ষ্যে গভর্নিং বডিকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হলো। এছাড়াও ভিকারুননিসা নুন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নিয়োগ বিষয়ে ইতিপূর্বে গঠিত পাঁচ সদস্যের নিয়োগ কমিটির সদস্যদের ভবিষ্যতে এই প্রতিষ্ঠানে মতো কোনো স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যক্ষ নিয়োগ কমিটিতে সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত না করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

পাঁচজনের ওই নিযোগ কমিটি ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ পদে দুদকের বিতর্কিত পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছিরের স্ত্রী রুমানা শাহীন শেফার নিয়োগ চূড়ান্ত করেছিল। অভিযোগ ওঠে, ৬০ লাখ টাকা ঘুষ দিয়ে ভিকারুননিসার স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ হতে চেয়েছিলেন রুমানা শাহীন শেফা। শেফা বর্তমানে মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক।

অভিভাবকদের পক্ষ থেকে অভিযোগ ওঠার পর শিক্ষা মন্ত্রণালয় তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে। এই তদন্ত কমিটির প্রধান ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (উন্নয়ন) আহমদ শামীম আল রাজি। বাকি দুই সদস্য হলেন– ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক হারুনুর রশীদ ও মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের সহকারী পরিচালক (প্রশিক্ষণ) মো. আনোয়ারুল আউয়াল খান। তারা সরেজমিনে তদন্ত করে জুনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব সোহরাব হোসাইনের কাছ তদন্ত প্রতিবেদন পেশ করেন। সেই তদন্তের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার এ ব্যবস্থা নেওয়া হল।