নতুন অফিসে মানিয়ে চলা

নতুন অফিস মানেই নতুন সহকর্মী। নতুন পরিবেশে নিজেকে মানিয়ে নেওয়া বেশ কঠিন একটি চ্যালেঞ্জ বলা যায়। একদিকে যেমন কাজে দক্ষতা প্রমাণের প্রচেষ্টা থাকে, আবার নতুন অফিসের পরিবেশ ও নিয়মকানুন-সংস্কৃতি নিয়ে অনেক অজানা প্রশ্ন আমাদের সামনে হাজির হয়। নতুন কর্মক্ষেত্রে নিজেকে সময়ের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারলেই কাজের দিকে পরিপূর্ণ মনোযোগ দেওয়া যায়।

মানবসম্পদ উন্নয়ন প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড ইয়ুথ ডেভেলপমেন্টের নির্বাহী পরিচালক সিলভীয়া পারভীন নতুন অফিসে নিজেকে মানিয়ে নেওয়াকে কাজের অংশ বলে মনে করেন। তিনি বলেন, ‘যেকোনো বয়সের মানুষের জন্যই নতুন অফিস বা কর্মক্ষেত্র নিয়ে কিছুটা দ্বিধা বা প্রশ্ন দেখা যায়। নিজেকে নতুন করে শেখার সুযোগ দিয়ে নতুন অফিসে যেকোনো পরিস্থিতিতে যেকোনো সময়েই নিজেকে মানিয়ে নেওয়া যায়।’ নতুন কাজে যেভাবে নিজেকে মানিয়ে চলবেন, তা নিয়ে পরামর্শ দিচ্ছেন মানবসম্পদ বিশেষজ্ঞ সিলভীয়া পারভীন।

অফিস ও প্রতিষ্ঠানের সংস্কৃতি, পরিবেশ, নিয়মকানুন সম্পর্কে মানবসম্পদ বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছ থেকে জেনে নেওয়ার চেষ্টা করুন। অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানেই নতুন কর্মীদের নিয়মকানুন সম্পর্কে জানানোর রীতি আছে। বিভিন্ন সেশনের মাধ্যমে এসব জানানো হয়। চেষ্টা করুন সব জেনে নিতে। কোনো প্রশ্ন থাকলে মানবসম্পদ বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।
অফিস ও প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন বিভাগের দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের নাম ও পরিচয় জেনে নিন। প্রয়োজনে মানবসম্পদ বিভাগের মাধ্যমে পরিচিত হওয়ার সুযোগ নিন।
অফিস ও প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন অফিসের অবকাঠামো সম্পর্কে ধারণা রাখুন। অফিসের বিভিন্ন বিভাগ কোথায় অবস্থিত, কে দায়িত্বশীল, কাজের প্রকৃতি সম্পর্কে ধারণা রাখুন।
যেকোনো প্রশ্ন বা জিজ্ঞাসায় সহকর্মী ও ঊর্ধ্বতন কর্তাব্যক্তিদের প্রশ্ন করুন। দ্বিধা বা সংশয় মনের মধ্যে রেখে নিজের অস্বস্তি তৈরি করবেন না।
অফিসের দৈনন্দিন কাজে স্টেশনারি-প্রিন্টার-কম্পিউটার-ফটোকপি ও মিটিং রুম ব্যবহার, টেলিফোন-মোবাইল ফোন ব্যবহার ও নিরাপত্তাসংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো সম্পর্কে ধীরে ধীরে জেনে নিন।
নিজের কাজের কৌশল হুট করেই অফিস বা কাজের প্রয়োজনে বদলে ফেলবেন না। ধীরে ধীরে নিজেকে মানিয়ে নিন। নতুন কর্মক্ষেত্রে নতুন করে মানিয়ে নেওয়ার জন্য নিজেকে সময় দিন।
কোনো কারণে নতুন পরিবেশ নিয়ে অসন্তুষ্টি বা আক্ষেপ তৈরি হলে বিশেষজ্ঞ বা অভিজ্ঞ কারও সঙ্গে আলোচনা করুন। প্রয়োজনে ইন্টারনেট থেকে বিভিন্ন আর্টিকেল পড়ার মাধ্যমেও নিজের প্রশ্নের উত্তর জেনে নিতে পারেন।
নতুন কর্মক্ষেত্রে যোগদানের পর ব্যাংক ও অন্যান্য প্রয়োজনে পাসপোর্ট, জাতীয় পরিচয়পত্রসহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের দরকার হতে পারে, সেদিকে খেয়াল রাখুন।
নতুন অফিসে যোগদানের পর অনেকেই আগের অফিসের সঙ্গে তুলনা করার চেষ্টা করেন। কখনোই তুলনা করবেন না, সবকিছুই ইতিবাচক হিসেবে দেখার চেষ্টা করুন। ভালো-মন্দের তুলনার চেয়ে নিজের আত্মোন্নয়নে মনোযোগ দিন।
আপনি যে বিভাগে যোগদান করেছেন, তার কাজের ব্যাপ্তি সম্পর্কে জানার চেষ্টা করুন। সহকর্মীদের সঙ্গে আন্তরিকতার সঙ্গে পরিচিত হোন। সবাই হয়তো আন্তরিক হবে না, কিন্তু নিজের মধ্যে বিনয় ও আন্তরিকতা রেখে নতুন বিষয় শেখার চেষ্টা করুন।
নতুন অফিসে নিজেকে মানিয়ে চলার জন্য মনে মনে ইতিবাচকভাবে নিজেকে উৎসাহ দিন। সবাই আপনাকে পছন্দ করছে, নতুন কর্মক্ষেত্র দারুণ লাগছে, নতুন নতুন বিষয় শিখছেন—বিষয়গুলো উপভোগ করার চেষ্টা করুন।