রিফাত হত্যা ॥ অগ্রগতি প্রতিবেদন হাইকোর্টে

বরগুনায় প্রকাশ্যে রিফাত শরীফ নামে যুবককে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় এ পর্যন্ত কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তার অগ্রগতি প্রতিবেদন এসেছে হাইকোর্টে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘রিফাত হত্যার সঙ্গে জড়িত এজাহারভূক্ত এখন পর্যন্ত পাঁচ আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার আছেন চারজন।’

বরগুনা জেলা প্রশাসক ও পুলিশের সুপারের এই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, ‘সন্দেহভাজন আসামি ধরতে অভিযান চালানোর সময় পুলিশের ওপর অতর্কিত হামলা চালালে পুলিশ আত্মরক্ষার্থে গুলি করতে বাধ্য হয়। পরে গোলাগুলি থেমে গেলে পুলিশ সেখান থেকে নয়ন বন্ডের লাশ উদ্ধার করে।’

আজ বৃহস্পতিবার বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চে এ প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হবে।

সংশ্লিষ্ট কোর্টের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার এ প্রতিবেদন উপস্থাপন করবেন।

এর আগে গত ২৭ জুন এই অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতে বলা হয়। একইসঙ্গে হত্যাকাণ্ডে জড়িতরা যাতে দেশ ত্যাগ না করতে পারে সেজন্য সীমান্তে রেড এলার্ট জারি করার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

ওইদিন সকালে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন আদালতের নজরে আনলে হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, গত ২৬ জুন সকালে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরীফকে (২২) প্রকাশ্যে তার স্ত্রীর সামনে কুপিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা।