দুদকে দুর্নীতিবাজ ক্যান্সার থাকলে ছেঁটে ফেলুন: হাইকোর্ট

দুর্নীতিবাজদের ‘ক্যান্সার’ আখ্যায়িত করে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) এ ধরনের ‘ক্যান্সার’ থাকলে তা ছেঁটে ফেলতে বলেছেন হাইকোর্ট।

বিনা অপরাধে ২৬ মামলায় প্রায় ৩ বছর সাজা খাটা পাটকল শ্রমিক জাহালমের ক্ষতিপূরণ প্রশ্নে জারি করা রুলের শুনানিতে বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার একথা বলেন।

একই সঙ্গে আদালত সোনালী ব্যাংকের ঋণ-সংক্রান্ত মামলার ভুল আসামি জাহালমের কারাবাসের ঘটনায় দুদকের কাছে প্রতিবেদন চেয়েছেন। আগামী ১১ জুলাইয়ের মধ্যে এ প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। ওই দিন এ বিষয়ে পরবর্তী শুনানি হবে।

বৃহস্পতিবার আদালত দুদকের আইনজীবীর উদ্দেশ্যে বলেন, ‘দুদকে কোনো দুর্নীতিবাজ ক্যান্সার থাকলে তা ছেঁটে ফেলুন। আমরা দুদককে স্বচ্ছ দেখতে চাই। এই জায়গায় দুর্নীতিবাজ থাকা উচিত নয়। দুদক স্বাধীন সার্বভৌম প্রতিষ্ঠান হিসেবে আরও শক্তিশালী হোক, আমরা সেটা চাই। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, মাদক সন্ত্রাস, দুর্নীতিবাজ– এরা জাতীয় শত্রু, যারা ভালো কাজ করবে, তাদের পুরস্কৃত করেন।’

হাইকোর্ট আরও বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির এখন স্বর্ণযুগ চলছে। তাই এখন অর্থনৈতিক ক্রাইম হওয়ার সুযোগ রয়েছে। দুদককে অনেক ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। তাই সততা ও স্বচ্ছতার সাথে দুদককে কাজ করতে হবে। দুদক শক্তিশালী না হলে দেশের অর্থনীতি শক্তিশালী হবে না।

এ সময় জাহালম আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এবিএম আবদুলল্গাহ আল মাহমুদ বাশার। জাহালমের পক্ষে অ্যাডভোকেট অমিত দাশগুপ এবং দুদকের পক্ষে ছিলেন খুরশীদ আলম খান।