মধ্যপ্রাচ্যে রোবট সোফিয়া তৈরিতে তোড়জোর, দুবাইয়ে বসছে দপ্তর

বর্তমান বিশ্বে চাঞ্চল্যসৃষ্টিকারী মানবাকৃতির রোবটের নাম সোফিয়া। এই রোবট তৈরীতে ভূমিকা রেখেছিল সিঙ্গুলারিটিনেট নামের গবেষকদের একটি দল। দুবাইতে একটি রিসার্চ ও ডেভলপমেন্ট ইউনিট চালু করতে যাচ্ছে সিঙ্গুলারিটিনেট। মধ্যপ্রাচ্যের বাজারকে আরো বিস্তৃত করতে এ পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে।

সিঙ্গুলারিটিনেট এর প্রধান নির্বাহী এবং প্রতিষ্ঠাতা ডক্টর বেন গোয়ের্টজেল জানান, এআই (আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স) এবং রোবোটিক্স দুবাই বা মধ্যপ্রাচ্যে প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে।

এই কম্পানিটির প্রধান কার্যালয় আমষ্টারডামে অবস্থিত। এটি বর্তমানে আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স, ব্লকচেইন এবং রোবোটিক্সের বিষয়ে কাজ করতে হংকং, ব্রাজিল, রাশিয়া, ইথিওপিয়ায় তাদের অফিস খুলেছে।

গত সপ্তাহে সিঙ্গুলারিটিনেট সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ার সাথে যৌথভাবে তাদের সাপ্লাই চেইন প্রসেস ও ব্লকচেইন-চালিত এআই বাস্তবায়নের কার্যক্রম শুরু করেছে।

গোয়ের্টজেল জানান, পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য দুবাই একটি উন্মুক্ত স্থান। দুবাইয়ের প্রতি মানুষের আগ্রহ বাড়ছে। এখানে অনেক রিসোর্স বিদ্যমান। সিঙ্গুলারিটিনেট বর্তমানে দুবাইতে স্থানীয় ইউনিটগুলোর সাথে যুক্ত হওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে।

তিনি বলেন, এই প্রকল্পের মধ্য দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের বাজার আমাদের জন্য বিস্তৃত হবে।

তবে, কবে এই প্রকল্পের কাজ শেষ হবে তা তিনি জানাননি।

তিনি বলেন, রোবট সোফিয়া তৈরী করা খুবই ব্যয়বহুল। এ কারণে বর্তমানে মাত্র কয়েকটি সোফিয়া রোবট রয়েছে।
তবে আমরা চীনের সেনঝেনে রোবট শিল্পের উন্নয়নের জন্য একটি ফ্যাক্টরির সঙ্গে কাজ করছি।

সোফিয়ার মত রোবট তৈরীতে যদি একটি কারখানা তৈরী করা যায় তবে নির্মাণ ব্যয় অনেকটাই কমে যাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, চীনের ইকোসিষ্টেমের বাজেটের কারণে সোফিয়ার মতো মানবাকৃতির রোবট তৈরীতে ভবিষ্যতে খরচ অনেকটা কমে যেতে পারে।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে সোফিয়া তৈরী করা হয়। মানবাকৃতির এই রোবটিকে বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে অত্যাধুনিক রোবট হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

সূত্র : দ্য ন্যাশনাল