২৯ হাজার ফ্রিল্যান্সার বানাবে সরকার

বৈদেশিক মুদ্রা আয়ের লক্ষ্যে বেকার যুবসমাজকে ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ দিয়ে ৩ বছরে ২৮ হাজার ৮০০ যুবককে প্রশিক্ষণ দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এ জন্য ২৯৯ কোটি ১৯ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে সরকার। প্রকল্পটির মাধ্যমে ২৮ হাজার ৮০০ জন যুবকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

এতে জনপ্রতি খরচ হবে ১ লাখ ৪ হাজার ১৬৩ টাকা। প্রশিক্ষণে ব্যয় বেশি ধরা হয়েছে বলে পরিকল্পনা কমিশনের কর্মকর্তাদের অভিযোগ ছিল। তবে, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর বলছে, অন্যদের তুলনায় আমাদের প্রশিক্ষণ খরচ কম।

কমিশন থেকে জানা গেছে, প্রকল্পটি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় উপস্থাপন করা হবে। এজন্য প্রকল্পটি সভার কার্যতালিকার এক নম্বরে রাখা হয়েছে।

প্রকল্পের মাধ্যমে শিক্ষিত ও কর্মপ্রত্যাশী যুবকদের কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশন, ইংলিশ ও ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়ার মাধ্যমে কর্মসংস্থান, স্বনির্ভরতা এবং বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের সুযোগ তৈরি করা হবে। প্রকল্পটির আওতায় ২৮ হাজার ৮০০ জন তরুণ-তরুণীকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

প্রকল্পে প্রস্তাবিত প্রশিক্ষণগুলোর সময় উপযোগী হওয়ায় প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য বিবেচনা করা যেতে পারে। প্রকল্পটি দেশের ৪৮ জেলায় জানুয়ারি ২০২৪ থেকে ডিসেম্বর ২০২৬ মেয়াদে বাস্তবায়ন করা হবে। প্রকল্পের মূল কাজ হচ্ছে ২৮ হাজার ৮০০ জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া। প্রশিক্ষক হায়ারিং, কর্মকর্তাদের বেতন ভাতা ও অন্যান্য ব্যয়।

প্রকল্পের মাধ্যমে যুবকদের জন্য ফ্রিলান্সিংয়ের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে যুবকদের স্বনির্ভরতা অর্জন হবে। এর মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা আয় বাড়বে। প্রকল্প প্রসঙ্গে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের পরিচালক (পরিকল্পনা) এম এ আখের বলেন, আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকে এ ব্যয় পাস হওয়ার পরে সেটি একনেকে উপস্থাপনের জন্য উঠছে।

তারা বাজারদর যাচাই বাছাই করেছে। আমার মতে অনেক কিছু চিন্তাভাবনা করেই মাথাপিছু প্রশিক্ষণ ১ লাখ ৬ হাজার টাকা ধরা হয়েছে। সেটার হিসেবেও আমাদের প্রশিক্ষণ ব্যয় কম।

পূর্বের খবর৩ মার্চ শুরু হবে ৪ দিনের ডিসি সম্মেলন
পরবর্তি খবরপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেছে ভারত : দিল্লি সফর শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী