মুচমুচে সমুচা

উম্মে নাজিয়া ফাতেমা

প্রয়োজনীয় উপকরন:

১. মাংসের কিমা – ১/২ কেজি

পুর তৈরিতে অন্য কিছু ব্যবহার করা যায়।

২. আদা বাটা – ২/২ চা চা.

৩. রসুন বাটা – ২/২ চা।চা.

৪. মরিচ বাটা – ২ চা চা.

৫. গোলমরিচ বাটা – ১/২ চা চা.

৬. এলাচ বাটা – ২ টি

৭. দারচিনি বাটা – ১/২ চা চা.

৮. তেজপাতা – ১টি

৯. পিয়াজ কুচি – ৬ টি

১০. ধনে বা পুদিনাপাতা – ২ টেবিল চামচ

১১. কাচামরিচ কুচি – ২ টি

১২. তেল – পরিমান মত

১৩. ময়দা – ১/২ কেজি

১৪. লবন – পরিমান মত

১৫. পানি- পরিমান মত

১৬. ভাজার জন্য তেল

রান্নার পদ্ধতিঃ

১. (মাংসের কিমা ব্যবহার করলে) মাংসের বাটা মসলা, তেজপাতা, লবন, তেল ও পানি দিয়ে ঢেকে মৃদু আচে রান্না করতে হবে। পানি শুকালে পিয়াজ,ধনেপাতা,কাচামরিচ দিয়ে ভেজে নামাও।

ডিমের কিমা করতে পারেন।-সকল মসলা ভেজে ডিম দিয়ে ভালোভাবে ভেজে ঝুরঝুরা পুর করতে পারেন।(ডিম- ৬টি)

সবজি পুর ও তৈরি করতে পারেন।

২. ময়দা লবন ও হালকা গরম পানি দিয়ে মেখে নিন। বড় বড় করে ময়দা কেটে নিন।

৩. একটি রুটি বেলে, সেটির উপর তেল মাখিয়ে নিন। তার উপরে আর একটি রুটি রাখুন, এবার বেলে বড় কর। অন্য গুলো এভাবে করুন।

৪. বড় রুটি গরম তাওয়াই সামান্য গরম করে সাবধানে রুটি গুলো তুলে আলাদা করো। দুটি রুটি আলাদা করা হলে ছুরি দিয়ে ২০ সে. মি. লম্বা ও ৮ সে.মি. চওড়া করে কাটে নিন। (মাপ কম বেশি হলে নিজের ইচ্ছামত কেটে নিতে পারেন)

৫. অল্প ময়দা পানিতে ঘন লেই এর মতো করে গুলে নাও।

৬. এক টুকরো রুটি ত্রিভুজ এর আকারে তিনবার ভাজ করে ভিতরে কিমা গুলো পুর করে দাও। রুটির বাকি অংশ গুলোকে তরল ময়দা মাখিয়ে এই বারতি অংশটুকু দিয়ে সমুচার খোলা মুখ বন্ধ করে নিন। ভালেভাবে আটকাতে হবে, নয়তো ভাজার সময় খুলে যাবে।

ডুবোতেলে ভেজে নিন। সস বা চাটনির সাথে পরিবেশন করুন।

এস/ভি নিউজ

পূর্বের খবরমিয়ানমারের সাথে চলামান উত্তেজনায় আমরা সতর্ক অবস্থানে রয়েছিঃ কোস্ট গার্ডের নবনিযুক্ত মহাপরিচালক
পরবর্তি খবরজ্ঞান নির্ভর, সৃজনশীল, নীতি-নৈতিকতা সম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করতে হবেঃ মনজুর আলম