নিখিল ভারত বঙ্গ সাহিত্য সম্মেলনের বর্ণাঢ্য সমাপ্তি

183

বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে মঙ্গলবার শেষ হল নিখিল ভারত বঙ্গ সাহিত্য সম্মেলনের শতবর্ষ উদযাপন।

নিউটাউনের সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটিতে সমাপ্তি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সম্মেলনের বিদায়ী সভাপতি তথা সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য, হিডকোর এমডি দেবাশিস সেন, বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সৌমিত্র শেখর দে, কলকাতায় বাংলাদেশ উপদূতাবাসের দ্বিতীয় সচিব (রাজনৈতিক) শেখ মারেফাত তারিকুল ইসলাম, সম্মেলনের নতুন সভাপতি স্বপন গাঙ্গুলি, সাধারণ সম্পাদক অনিল ধর প্রমুখ। প্রধান অতিথির ভাষণে দেবাশিস সেন প্রবাসে সফল বাঙালিদের দেশে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিতে সকলকে অনুরোধ জানান। মারেফাত বাংলা ভাষার প্রতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের গভীর ভালবাসার কথা ব্যক্ত করেন। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, অতুল প্রসাদ সেন, জগদীশ বসু থেকে শুরু করে প্রয়াত প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি-সহ বহু বিশিষ্ট বাঙালির স্মৃতিধন্য এই সংগঠনটির শতবর্ষ উপলক্ষে চাঁদেরহাট বসেছিল নিউটাউনে। বাঙালির সবচেয়ে প্রাচীন সংগঠনটির তিন দিনের শতবর্ষ অনুষ্ঠানে সস্ত্রিক রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস, লোকসভার প্রাক্তন অধ্যক্ষা মীরা কুমার পন্ডিত অজয় চক্রবর্তী, শর্মিলা ঠাকুর, সৌরভ গাঙ্গুলি, প্রাক্তন বিচারপতি শ্যামল সেন, বিজ্ঞানী বিকাশ সিংহ প্রমুখ বাঙালির ঐতিহ্য তুলে ধরেন। পশ্চিমবঙ্গের বাইরের রাজ্যগুলির পাশাপাশি বাংলাদেশ-সহ বহু দেশ থেকে প্রতিনিধিরা অংশ নিয়েছিলেন এই সম্মেলনে। সম্মেলনের সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য জানান, বাংলা ভাষাকে ভালবেসে আগামী দিনেও নিখিল ভারত বঙ্গ সম্মেলন কাজ করবে। দুনিয়ার বিভিন্ন প্রান্তে বসবাসকারী বাঙালিদের ঐক্যের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি। অভ্যর্থনা সমিতির সভাপতি সত্যম রায়চৌধুরীর মতে, আগামী দিনেও বাংলা ভাষার চর্চায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে এই সংগঠনটি। ভাষার টানে দুনিয়ার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যাঁরা এসেছিলেন তাঁদের সকলকে শুভেচ্ছা জানান তিনি। তিন দিনের এই উৎসবে বাংলা গান, নাচ, নাটক, আবৃত্তির পাশাপাশি ভাষা ও সাহিত্য নিয়ে একাধিক মনোজ্ঞ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন সাহিত্য ও সংগীত জগতের বিশিষ্টজনেরা।