তাজমহল নিয়ে যা বললেন ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

108

তাজমহলের ইতিহাস পুনরায় যাচাই করে দেখার আবেদন জানিয়ে ভারতের সুপ্রিম কোর্টে করা জনস্বার্থ মামলা খারিজ করে দেওয়া হয়েছে। মামলাকারীকে ভর্ৎসনাও করেছেন দেশটির শীর্ষ আদালত। বিচারপতি বলেছেন, ৪০০ বছর পর নতুন করে আবার ইতিহাসের পাতা খুলে দেখা যায় না।

তাজমহল সম্পর্কে ছোটদের বইয়ে যে ইতিহাস ছাপা হয়েছে, তা আদৌ ঠিক নয় বলে দাবি করেছিলেন মামলাকারী।

নতুন করে সেই ইতিহাস খতিয়ে দেখে পাঠ্যবইতে ‘বস্তুনিষ্ঠ’ ইতিহাস লেখার প্রয়োজন বলে জানিয়েছিলেন তিনি।  

ভারতের সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি এম আর শাহ এবং বিচারপতি সিটি রবিকুমারের ডিভিশন বেঞ্চে সেই আবেদন খারিজ হয়ে গেছে।

তাজমহল নিয়ে একাংশের অভিযোগ, আগ্রার ওই স্থাপত্যের বয়স অনেক পুরনো। মুঘল আমলে নয়, তার আগে থেকেই তাজমহলের অস্তিত্ব রয়েছে। অর্থাৎ মুঘল সম্রাট শাহজাহান তাঁর মৃত স্ত্রী মমতাজের স্মৃতির উদ্দেশে তাজমহল তৈরি করেছিলেন বলে যে ইতিহাস প্রচলিত রয়েছে, তা মানতে নারাজ মামলাকারী।  

এ প্রসঙ্গে ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগ তথা আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার (এএসআই) নতুন করে গবেষণা প্রয়োজন বলেও দাবি করা হয়েছিল।

সোমবার ওই মামলার শুনানিতে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি মামলাকারীর উদ্দেশে বলেন, আপনি আবেদনে জানিয়েছেন, ভুল ইতিহাস পরিবর্তন করতে হবে। তার মানে আপনি নিজেই ধরে নিয়েছেন, তাজমহলের ইতিহাস ভুল?

তাজমহল নিয়ে জনস্বার্থ মামলটি করেছিলেন সচ্চিদানন্দ পাণ্ডে। তাঁর পক্ষে মামলা লড়েছেন আইনজীবী বরুণ কুমার সিন্‌হা। তাঁর বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি বলেন, ছোটখাটো অনুসন্ধানের জন্য জনস্বার্থ মামলা করা যায় না। তাজমহল ৪০০ বছর ধরে রয়েছে। সেটা যেমন আছে, তেমনই থাকতে দিন। আপনি এ বিষয়ে সিদ্ধান্তের ভার এএসআইয়ের ওপরই ছেড়ে দিন। সব কিছুতে আদালতকে টেনে আনবেন না। ৪০০ বছর পর ইতিহাসের পাতা নতুন করে খোলা যায় না। প্রত্নতত্ত্বের বিষয়ে আদালতের কিছু করার নেই।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া