জনমত নিয়ে ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দিলেন ইলন মাস্ক

9

জনমত জরিপের ফলের ভিত্তিতে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দিয়েছেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক। ট্রাম্পের নিষিদ্ধ টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে টুইটার ব্যবহারকারীদের কাছে মতামত চাওয়া হয়।  

এনডিটিভি জানিয়েছে, জনমত জরিপে ট্রাম্পের পক্ষে বেশি ভোট যাওয়ায় নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছেন টুইটারের নতুন মালিক ইলন মাস্ক।

জনমত জরিপে টুইটার ব্যবহারকারীদের কাছে ইলন মাস্ক জানতে চেয়েছিলেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট পুনরায় চালু করা উচিত কি না? জরিপে ফলোয়ারদের কাছে মতামত চান বিশ্বের শীর্ষ এই ধনী।

জরিপের ফলে দেখা যায়, জরিপটিতে অংশ নিয়েছেন ১৫ মিলিয়নেরও বেশি মানুষ। তাদের মধ্যে ৫১.৮ শতাংশ ট্রাম্পের পক্ষে আর বিপক্ষে গেছে ৪৮.২ শতাংশ।

গতকাল শনিবার ট্রাম্প বলেছেন, জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্মটিতে ফিরে আসতে চান না। টুইটার থেকে তার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়ার পর ট্রুথ সোশ্যাল নামে একটি অ্যাপ চালু করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেখানেই তিনি থাকবেন বলে জানিয়েছেন।

তবে ইলন মাস্কের জরিপকে স্বাগত জানিয়েছেন ট্রাম্প। তিনি ইলন মাস্ককে পছন্দ করেন বলে জানিয়েছেন। তবে টুইটারে প্রত্যাবর্তনের বিষয়টি প্রত্যাখ্যান করছেন।

অন্যদিকে রিপাবলিকান পার্টির অনেকেই ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে আসায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।  

ওয়েবসাইটে জরিপের ওপর মাস্ক লিখে রেখেছেন লাতিন বচন ‘ভক্স পপুলি, ভক্স ডেই’। কথাটির অর্থ, ‘জনগণের কণ্ঠস্বরই ঈশ্বরের কণ্ঠস্বর’।

এর আগে চলতি বছরের মে মাসে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবেন বলে জানিয়েছিলেন ইলন মাস্ক।   

গত মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পর ট্রাম্প সমর্থকদের কংগ্রেস ভবনে হামলার পরিপ্রেক্ষিতে তাকে টুইটারে নিষিদ্ধ করা হয়। ট্রাম্পের কিছু টুইট বার্তা সমর্থকদের উসকে দিয়েছিল বলে অভিযোগ রয়েছে।

মাস্ক টুইটারের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর আগে নিষিদ্ধ এবং স্থগিত কিছু বিতর্কিত অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে এনেছেন। এসব অ্যাকাউন্টের মধ্যে রয়েছে ব্যঙ্গাত্মক ওয়েবসাইট ব্যাবিলন বি এবং কমেডিয়ান ক্যাথি গ্রিফিনের টুইটার অ্যাকাউন্ট।
সূত্র: এনডিটিভি