বিশ্বের শ্রম বাজারে তীব্র মন্দা, চাকরি হারিয়েছেন ৪ কোটি মানুষ: আইএলও

16

বিশ্বের শ্রম বাজারে এখন চলছে তীব্র মন্দা। বিষয়টি নিয়ে সতর্কবার্তা দিয়েছে জাতিসংঘ। সোমবার শ্রম বিষয়ক বৈশ্বিক প্রতিষ্ঠান আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও ) জানিয়েছে, রাশিয়া ও ইউক্রেনের যুদ্ধের কারণে এই মন্দা আরও বেড়ে যেতে পারে। কোভিড–১৯ মহামারীর পর থেকে চাকরিচ্যুত হয়েছেন অন্তত ৪ কোটি মানুষ।

নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

সম্প্রতি প্রকাশিত আন্তর্জাতিক শ্রম সংগঠনের (আইএলও) এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, বৈশ্বিক শ্রম বাজার গত কয়েক মাস ধরেই ক্রমশ সংকুচিত হচ্ছে। আইএলওর প্রধান গিলবার্ট হৌঙবো সাংবাদিকদের জানান, বিশেষ করে ২০২২ সালের সর্বশেষ তিন মাসে শ্রমিক নিয়োগের হার উল্লেখযোগ্যভাবে কমেছে। বেকারত্ব আরও বাড়তে পারে।

গভীর জ্বালানি ও খাদ্য নিরাপত্তা সংকট, ব্যাপক মূল্যস্ফীতি, আর্থিক নীতি কঠোর করা এবং বিশ্বব্যাপী মন্দার আশঙ্কার মধ্যে জাতিসংঘের এই অঙ্গ প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, কর্মসংস্থান সৃষ্টির হার ও কাজের মান উভয়ই কমে যাচ্ছে। 

আইএলওর প্রতিবেদনে বলা হয়, যদিও সাধারণত অর্থনৈতিক মন্দার ফলে শ্রমবাজারের সংকোচন এবং বেকারত্ব বাড়ার ক্ষেত্রে বেশ সময় লাগে তারপরও প্রাপ্ত তথ্য থেকে বোঝা যায়, শ্রম বাজারে একটি তীব্র মন্দা বিদ্যমান রয়েছে।

আইএলওর প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, চলতি বছরের শুরুতে বিশ্ব কোভিড–১৯ মহামারীর ধাক্কা থেকে সামলে উঠতে শুরু করলেও জনসংখ্যা অনুপাতে কর্ম সংস্থানের হার আবার কোভিড–১৯ পূর্ববর্তী অবস্থায় ফিরে গিয়েছিল। তবে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে সেই পরিস্থিতি নেতিবাচক দিকে পরিবর্তিত হয়েছে।

চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে কোভিড মহামারীর আগে যে পরিমাণ শ্রম ঘণ্টা ছিল বিশ্বজুড়ে তা অন্তত দেড় শতাংশ কমে গেছে। সারা বিশ্বে অন্তত ৪ কোটি মানুষ কাজ হারিয়েছেন। 

আইএলওর প্রতিবেদনে বলা হয়, যেহেতু বিশ্বজুড়ে শ্রম বাজার সংকুচিত হচ্ছে, মূল্যস্ফীতির কারণে প্রকৃত মজুরি কমছে। তাই বিশ্বের অনেক দেশের মানুষেরই দৈনন্দিন জীবনযাপনের মান অনেকটাই কমে গেছে, যা দেশগুলোর অর্থনীতিকেও নেতিবাচক দিকে প্রভাবিত করছে। সূত্র: নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস