যেসব কারণে শ্রীলঙ্কার কাছে হারতে হল ভারতকে

এশিয়া কাপে সুপার ফোরের দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে ৬ উইকেটে হেরে গেছে ভারত। প্রথমে ব্যাট করে ভারত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৭৩ রান তোলে। জবাবে শ্রীলঙ্কা ১৯.৫ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায়। 

ভারতকে বিবেচনা করা হয় ক্রিকেট পরাশক্তি হিসেবে। কিন্তু এত শক্তিশালী হয়েও কেন শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে গেল দলটি। এর পেছনে বেশ কয়েকটি কারণ চিহ্নিত করা গেছে। আসুন সেগুলো জেনে নেওয়া যাক:-

১.  প্রথম তিন ওভারে লোকেশ রাহুল এবং বিরাট কোহলির উইকেট পড়ে যাওয়া। তখন ভারতের রান মাত্র ১৩। রাহুল ৬ রানে আউট হওয়ার পরে ভারত আরও বড় ধাক্কা খায় কোহলি শূন্য রানে ফিরে যাওয়ায়।

 

২. ভারতীয় ব্যাটারদের মধ্যে একমাত্র যাকে বিপজ্জনক মনে হচ্ছিল, সেই রোহিত শর্মা ১৩তম ওভারে ৭২ রান করে ফিরে যান। এটিই ভারতের হারের সব থেকে বড় কারণ। রোহিত উইকেটে আরও চার-পাঁচ ওভার থাকলে ভারতের রান নিঃসন্দেহে ২০০-এর কাছাকাছি পৌঁছত। সেক্ষেত্রে শ্রীলঙ্কা মানসিকভাবে চাপে থাকত।

৩. সূর্যকুমার যাদব উইকেটে জমে গিয়েও ৩৪ রানে আউট হয়ে যান। হার্ডিক পান্ডিয়া ও ঋষভ পান্ত এই ম্যাচেও ব্যর্থ। দু’জনেই ১৭ রান করেন।

৪. শ্রীলঙ্কার বাঁহাতি পেসার দিলশান মাদুশাঙ্ক, অফস্পিনার মাহিশ থিকশানা ও ডানহাতি পেসার চামিকা করুণারত্নেকে খেলতেই পারেননি ভারতীয় ব্যাটাররা। তিনজনের ১২ ওভারে ৮০ রান ওঠে। তিনজনে মিলে মাত্র চারটি চার ও দু’টি ছক্কা দেন।

৫. শ্রীলঙ্কার দুই ওপেনিং ব্যাটারকে বিন্দুমাত্র সমস্যায় ফেলতে পারেননি ভারতীয় বোলাররা। প্রথম ১০ ওভারেই ৮৯ রান তুলে ফেলেন পাথিউম নিসাঙ্কা ও কুশল মেন্ডিস।

৬. ভুবনেশ্বর কুমার ছাড়া ভারতের কোনও বোলারই ভাল বল করতে পারেননি। অর্শদীপ সিং, হার্ডিক পান্ডিয়া, যুজবেন্দ্র চাহাল, রবিচন্দ্রন অশ্বিনরা প্রচুর রান দেন।

৭. দল নির্বাচন একেবারেই ঠিক হয়নি। আগের ম্যাচে সব থেকে ভাল বল করা রবি বিষ্ণোইকে এই ম্যাচে অজ্ঞাত কারণে বাদ দিয়ে নেমেছিলেন রোহিত শর্মারা।