আগামী মাসেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারত সফরে যাচ্ছেন। তার সফরের পরই সব নিন্দুকের মুখ বন্ধ হয়ে যাবে- ঢাকা ক্লাবে বিজিপির মুথপাত্র ও যুব মোর্চার সর্ব ভারতীয় সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৌরভ শিকদার

 

ভিনিউজ- নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় আসার পর ভারতের মতো শেখ হাসিনার বাংলাদেশেরও নতুনভাবে জন্ম হয়েছে। ভারতে যেমন নতুন নতুন বিশাল কর্মযজ্ঞ এখন বাংলাদেশেও চলছে। মোদীর সঙ্গে শেখ হাসিনা হাতে হাত রেখে কাজ করছেন। আগামী মাসেই শেখ হাসিনা ভারত সফরে যাচ্ছেন। হাসিনার সফরের পরই সব নিন্দুকের মুখ বন্ধ হয়ে যাবে। বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক একে অপরের পরিপূরক। দুই দেশের সাধারণ মানুষ পরষ্পরকে শত্রু মনে করে না। অশুভ শক্তি মানুষের সদিচ্ছা ও সঠিক নেতৃত্বের কাছে পরাজিত হবেই। দ্ইু দেশের মানুষের একে অপরের প্রতি ভালোবাসা একদিনে হয়নি, আবার একদিনে তা যাবেও না।
রবিবার রাতে ঢাকা ক্লাবের স্যামসন এইচ চৌধুরী হল রুমে ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ক অটুট রাখার লক্ষ্যে-সেন্টার ফর বাংলাদেশ ইন্ডিয়া রিলেশন্সের (সিবিআইআর) উদ্যোগে শোক দিবসের আলোচনা সভাতে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিজেপির সাবেক যুব সংগঠন সম্পাদক ও বর্তমানে মুখপাত্র সৌরভ শিকদার একথা বলেন।
সৌরভ শিকদার আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু একটি আবেগের নাম, বাংলাদেশের মানুষের অহংকারের নাম। তাকে হত্যা করা হলেও বাঙালির হৃদয় থেকে নাম মুছে ফেলা যাবে না। যতবার তার নাম মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে, ততোবারই আরও বেশি শক্তিশালী হয়ে তিনি ফিরে এসেছেন বাংলাদেশে। বাংলাদেশের ভৌগলিক সীমারেখা বিবেচনায় না সহজেই বলা যায়, চিত্তরঞ্জন ও নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসুর পরে তিনি একমাত্র ব্যক্তি যিনি ভারতবর্ষে জন্মগ্রহণ করেছেন।
আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি।

সভার শুরুতে ভারত-বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত পরিবেশনা করে শোক দিবসে বঙ্গবন্ধুসহ অন্যান্য ত্যাগী নেতাদের স্মরনে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। সংগঠনের চীফ কো-অর্ডিনেটর ড. এস এম জাহাঙ্গীর আলম সভাটি সঞ্চালনা করেন। সেখানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত ডিআইজি ও সংগঠনের সাধারন সম্পাদক বরকত উল্লাহ খান। ভারতের পক্ষে আরও উপস্থিত ছিলেন বিজেপি দক্ষিণ দিল্লির মহিলা মোর্চার সভাপতি এডভোকেট সুচিস্নতা স্যানাল ও মুম্বাইয়ের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সুবরামানিয়াম সুমিনাথান।

বাংলাদেশের পক্ষে বক্তব্য রাখেন অসীম কুমার উকিল এমপি, পঙ্কজ দেবনাথ এমপি, বীরেন শিকদার এমপি, ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপি, ডা: শামিউল উদ্দিন শিমুল এমপি ও ফজলুর রহমান পীর এমপি। সভাতে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসেন, সুপ্রীম কোর্টের ডেপুটি অ্যাটর্নী জেনারেল মোখলেছুর রহমান ও সিরাজগঞ্জের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম জাহিদ। সংগঠনের পরিচালক শহিদুল ইসলাম খোকন সভার সমাপনী বক্তব্য। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কৃষক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিশ্বনাথ সরকার বিটু, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার সুবাস হাওলাদার, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জাকির আহমেদ, ব্যারিস্টার শুক্লা সারওয়াত সিরাজ, কৃষকলীগ নেতা হেলাল উদ্দিন, ডিনিউজ সম্পাদক জয়ন্ত আচার্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক রোবায়েত ফেরদৌস প্রমুখ, খুলনা আওয়ামী লীগের ত্রান সম্পাদক শ্রীমন্ত অধিকারী রাহুল ।