৬০০ কোটি টাকা দিতে শেভরনকে হাইকোর্টের নির্দেশ

তেল-গ্যাস উত্তোলনকারী যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক বহুজাতিক কম্পানি শেভরন বাংলাদেশকে তাদের লভ্যাংশ থেকে ৬০২ কোটি টাকা প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শ্রমিকদের দিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এটা প্রতিষ্ঠানটির ৬০০ কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিকদের মধ্যে সমভাবে বণ্টন করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ সোমবার এ রায় দেন। এ বিষয়ে তিনবছর আগে জারি করা রুল নিষ্পত্তি করে এ রায় দেন আদালত।

কম্পানির ঢাকা ও সিলেট কার্যালয়ে কর্মরত ৫৩১ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী-শ্রমিকের করা এক রিট আবেদনে এ রায় দেওয়া হয়। রিট আবেদনকারী পক্ষে আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার ওমর সাদাত, ব্যারিস্টার আবির আব্বাস চৌধুরী ও ব্যারিস্টার আয়েশা। শেভরনের পক্ষে ছিলেন ড. নাইম আহমেদ।

রায়ের পর ব্যারিস্টার ওমর সাদাত সাংবাদিকদের বলেন, শ্রম আইন- ২০০৬ অনুযায়ী কম্পানির লভ্যাংশের পাঁচ শতাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারী-শ্রমিকদের মধ্যে বণ্টন করতে হবে। কিন্তু শেভরন ২০০৬ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত কোনো লভ্যাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারী-শ্রমিকদের দেয়নি। এ কারণে রিট আবেদন করা হয়। ইতিমধ্যেই কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে শেভরনের একটি সমঝোতা চুক্তি হয়েছে। শেভরন টাাক দিতে রাজি হয়েছে। এটা আদালতকে জানানো হয়েছে। এ অবস্থায় আদালত রায় দেন।