৫০টি আসনে পুনর্গণনার দাবি তুলে আদালতের পথে বিজেপি

44
Social Share

ভারতে একুশের বিধানসভা ভোটে বিরাট জয় পেয়েছে তৃণমূল। তবে নন্দীগ্রাম আসনে শুভেন্দু অধিকারীর কাছে হেরে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল সুপ্রিমোর অভিযোগ, ভোট গণনায় কারচুপি হয়েছে। তাই মুখ্যমন্ত্রী পদে বসার ৪১ দিন পর পুনর্গণনার দাবি জানিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছেন তিনি। আগামী সপ্তাহের বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানি হবে।

তবে শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নয়। তৃণমূলের আরও চারজন প্রার্থী ভোট গণনায় কারচুপির অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন। তারা হলেন– পূর্ব মেদিনীপুরের তৃণমূল প্রার্থী সংগ্রাম কুমার দলুই, উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ দক্ষিণের তৃণমূল প্রার্থী রানী সরকার, পুরুলিয়ার বলরামপুরের তৃণমূল প্রার্থী শান্তিরাম মাহাতো এবং হুগলির গোঘাটের তৃণমূল প্রার্থী মানস মজুমদার।

এদিকে, বসে নেই রাজ্য বিজেপিও। পাঁচের বদলা পঞ্চাশ। এবার কম ব্যবধানে হেরে যাওয়া ৫০টি বিধানসভা আসনে পুনর্গণনার দাবি জানিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হতে চলেছে গেরুয়া শিবির। জানা গিয়েছে, যে আসন গুলিতে জয়ের ব্যবধান হাজার, ৭ হাজারের সামান্য কম, ১০ হাজারের কম সেই আসনগুলিতে পুনর্গণনার দাবি জানাবে বিজেপি।

সেই আসনগুলি হল- উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়ি, পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তমলুক ও মহিষাদল, পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতন, মালদার বৈষ্ণবনগর, মুর্শিদাবাদের বড়ওয়ান, উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাবড়া, বাঁকুড়ার রানীবাঁধ, পশ্চিম বর্ধমানের দূর্গাপুর পূর্ব ও রানীগঞ্জ এবং বীরভূম জেলার নানুর বিধানসভা কেন্দ্র। সূত্র: কলকাতা ট্রিবিউন