৪৮ হাজার কোটি টাকার অত্যাধুনিক দেশীয় যুদ্ধবিমান তেজস কেনার ছাড়পত্র দিল মোদী সরকার

24
Social Share

সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি তেজস যুদ্ধবিমান কেনার ছাড়পত্র দিল নিরাপত্তা বিষয়ক কেন্দ্রীয় মন্ত্রীগোষ্ঠী (CCS)। বুধবার হিন্দুস্থান অ্যারোনটিক্যালস লিমিটেডের (HAL) কাছ থেকে তেজসের উন্নততর সংস্করণ মার্ক-১এ কেনার সিদ্ধান্তে ছাড়পত্র দিয়েছে প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত ক্যাবিনেট কমিটি। জানা গিয়েছে, হ্যালের কাছ থেকে অত্যাধুনিক ৮৩টি তেজস যুদ্ধবিমান কেনা হবে ভারতীয় বায়ুসেনার জন্য। নয়া যুদ্ধবিমানগুলি সীমান্তে চিনা আগ্রাসন ও পাকিস্তানকে চাপে রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

চুক্তি অনুযায়ী, ৪৮ হাজার কোটি টাকার বিনিময়ে ৮৩টি তেজস যুদ্ধবিমান পাবে ভারতীয় বায়ুসেনা। উল্লেখ্য, দেশীয় বাজারে এটাই সবচেয়ে বড় প্রতিরক্ষা চুক্তি। এত বড় বাজেট বিষয়টি ইস্যু হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তবে দেশের সুরক্ষার প্রশ্নে কোনও আপোষ করতে রাজি নন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। উল্লেখ্য, সিসিএসের প্রধান প্রধানমন্ত্রী নিজেই।

প্রাথমিকভাবে এই চুক্তির জন্যে ৫৬ হাজার ৫০০ কোটি টাকা দাবি করেছিল হ্যাল। প্রায় এক বছর ধরে বায়ুসেনার সঙ্গে হ্যাল কর্তৃপক্ষের দর কষাকষির পর শেষমেশ রফা হয়েছে ৪৮ হাজার কোটি টাকাতে। আগামী তিন বছরের মধ্যে এই ৮৩টি তেজস বিমান বায়ুসেনার হাতে তুলে দেবে হ্যাল। জানিয়ে রাখি, বর্তমানে যুদ্ধবিমানের অভাবে ভুগছে বায়ুসেনা। ৪০ ফাইটার স্কোয়াড্রন (এক স্কোয়াড্রনে ১৮টি যুদ্ধবিমান থাকে) প্রয়োজন, সেখানে বর্তমানে মাত্র ৩০ ফাইটার স্কোয়াড্রন রয়েছে। ৮৩টি তেজস বিমান বাহিনীতে যুক্ত হলে সেই ঘাটতি অনেকটাই পূরণ হবে।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, ৮৩টি তেজস কেনার সিদ্ধান্ত দেশের প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে স্বনির্ভরতার পথে এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ। তিনি জানান, তেজসের নয়া সংস্করণ আগামী দিনে ভারতীয় বায়ুসেনার মেরুদণ্ড হবে। গত বছরের মার্চে তেজসের উন্নততর সংস্করণ কেনার সুপারিশ করেছিল প্রধানমন্ত্রী। তার পরেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বায়ুসেনার দাবি, চিনের জেএফ-১৭ যুদ্ধবিমানের তুলনায় তেজস মার্ক-১এ অনেকটাই এগিয়ে। তেজসের সর্বোচ্চ গতি ২২২২ কিমি প্রতি ঘণ্টায়। মাঝ আকাশে জ্বালানিও ভরতে পারে এই যুদ্ধবিমান। তেজসকে আরও উন্নত করতে ‘অ্যাক্টিভ ইলেকট্রনিক্যালি স্ক্যান্‌ড অ্যারো রেডার’ (এএসইএ), মিড এয়ার ফুয়েলিং এবং ‘অস্ত্র’ ক্ষেপণাস্ত্র যুক্ত করতে চলেছে হ্যাল।