২১ জেলায় ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে : ওবায়দুল কাদের

ডেঙ্গুর বিষয়ে রাজধানী থেকে ইউনিয়ন পর্যন্ত সারাদেশে তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। একইসঙ্গে বর্তমান ডেঙ্গু পরিস্থিতি উদ্বেগজনক বলেও মন্তব্য করেছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আজ সোমবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠক শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য তুলে ধরেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের বলেন, আজকের সভায় তিনটি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ডেঙ্গু পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। ২১টি জেলায় ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে। জনসচেতনতার লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ সারাদেশে রাজধানী থেকে ইউনিয়ন পর্যন্ত তিন দিন ( ৩১ জুলাই, ২ ও ৩ আগস্ট) কর্মসূচি পালন করবে।

তিনি আরো বলেন, ওই তিনদিন বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালনা করা হবে। এতে নেতাকর্মীদের অংশ নেয়ার আহ্বান জানান।

এ সময় ডেঙ্গু নিয়ে মেয়র ও মন্ত্রীদের কথায় ‘স্লিপ অব টাং’ হতে পারে বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের এই নেতা। তিনি বলেন, তবে কাজ-কর্মে তারা আন্তরিক।

গত বৃহস্পতিবার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে এক অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছিলেন, ডেঙ্গুর জীবানুবাহী এডিস মশার প্রজনন ক্ষমতা রোহিঙ্গাদের মতো। পরে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্যের সমালোচনা করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন অনেকে। এ ছাড়া ঢাকা সিটি করপোরেশন দক্ষিণের মেয়র সাঈদ খোকনের কিছু বক্তব্যেরও প্রচুর সমালোচনা হচ্ছে।

এ ছাড়াও ওবায়দুল কাদের বলেন, বন্যা-পরবর্তী পুনর্বাসন অব্যাহত থাকবে। যারা ঘরবাড়ি হারিয়েছেন তাদের ঘর-বাড়ি দেওয়া হবে। সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে সরকারের মধ্যে এক ধরনের সমন্বয়হীনতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে, কারণ কী? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকার ও দলে কোনো সমন্বয়হীনতা নেই। সবাই ঐক্যবদ্ধ আছে বলেই আমরা মোকাবেলা করতে পারছি। যত ভয়াবহ বিস্তারই ঘটুক না আমরা মোকাবেলা করতে পারব।

তা ছাড়াও উপজেলা নির্বাচনে যারা বিদ্রোহ করেছে তাদের প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, যারা বিদ্রোহ করেছে ও মদদ দিয়েছে তাদের ‘শো কজ’ এবং দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হবে। যাচাই-বাছাই করে এসব ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিষয়গুলো প্রক্রিয়াধীন আছে।