১৪৫ কিলোমিটার গতির সঙ্গে বিষাক্ত সুইং; হুংকার ছাড়লেন শামি

41
Social Share

বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল খেলতে ইংল্যান্ডে উড়ে যাওয়ার আগে দুই প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডকে সতর্ক করে দিলেন ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামি। তার দাবি, সেরা পেস বোলিং লাইনআপ নিয়ে ইংল্যান্ডে যাচ্ছে ভারত। তাই বিদেশি দল নিজেদের ঘরের মাঠে উইকেট তৈরি করার আগে অন্তত দুই বার ভাবনা চিন্তা করছে। এই দুর্দান্ত পেস আক্রমণের কারণেই বিরাট কোহলির দল এখন বিদেশেও ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলে।

তবে শামি শুধু একা নন, প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের ঘুম কেড়ে নেওয়ার জন্য তার সঙ্গে আসন্ন সফরে আছেন ইশান্ত শর্মা, যশপ্রীত বুমরা, উমেশ যাদব, মোহাম্মদ সিরাজ ও শার্দূল ঠাকুর। তাই দুই প্রতিপক্ষকে হুংকার দিয়ে শামি বলছেন, ‘আমাদের পেস বিভাগের সবচেয়ে ভালো দিক হলো, আমরা সবাই একটানা ১৪০ থেকে ১৪৫ কিলোমিটার গতিতে বোলিং করতে পারি। সঙ্গে থাকে বিষাক্ত সুইং। কোনও দলে এক কিংবা দুজন খুব পেস বোলিং করলে প্রতিপক্ষের সমস্যা হয় না। কিন্তু আমাদের দলে সবাই পেস লাইন-লেংথ বজায় রেখে সবাই দ্রুত গতিতে বোলিং করে। ফলে আমাদের মোকাবিলা করা বেশ কঠিন।’

ইশান্ত, শামি, বুমরাদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আগামী দিনের জন্য নবদীপ সাইনি, প্রসিদ্ধ কৃষ্ণ, দীপক চাহার, শার্দূলের মতো বোলাররা উঠে এসেছেন। শামির দাবি এটাই ভারতের সেরা পেস বোলিং লাইনআপ। তার ভাষায়, ‘কাউকে খাটো করছি না। অতীতে কিন্তু ভারতীয় দল এক কিংবা দুজন পেস বোলারের উপর নির্ভর করত। তবে এখন সেই ধারা আর নেই। আমাদের এই দলে একাধিক ম্যাচ জেতানো বোলার আছে। তাই বিদেশ সফরে গেলে প্রতিপক্ষ দল উইকেটে ঘাস রাখার আগে অন্তত দুই বার ভাবনা চিন্তা করে।’

ভারতীয় দলে এখন তরুণ বোলারদের কীভাবে আগলে রাখা হয় তা জানিয়ে শামি বলেন, ‘আমাদের ড্রেসিংরুমে সিনিয়র-জুনিয়র বলে কোনো ভেদাভেদ নেই। সবাই নিজের মতামত দিতে পারে। কারণ আমাদের আসল লক্ষ্য হল দেশের জয়। তাছাড়া আরও একটা বিষয়ের দিকে আমরা নজর দিয়ে থাকি। সিনিয়র হিসেবে দলের জয়ে অবদান রাখা ছাড়াও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য কী উদাহরণ তৈরি করছি সেটাও কিন্তু বড় ব্যাপার। দেশের ক্রিকেটকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য সেই কাজটাই করছি।’