হেলেনা জাহাঙ্গীর গ্রেফতার

466
Social Share

আওয়ামী লীগের নারী বিষয়ক উপকমিটি থেকে বাদপড়া হেলেনা জাহাঙ্গীরকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ৮টা থেকে টানা চার ঘণ্টা তার গুলশানের বাসভবনে তল্লাশি অভিযান শেষে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার শেষে রাত সোয়া ১২টায় র‍্যাব জানিয়েছে, হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসা থেকে বিদেশি মদ, বৈদেশিক মুদ্রা, হরিনের চামড়া, বিদেশি অসংখ্য ছোড়া চাক্কু এবং ক্যাসিনো সামগ্রী উদ্ধার করা হয়েছে। রাত সোয়া ১২টায় হেলেনা জাহাঙ্গীরকে গাড়িতে তুলে র‍্যাব হেড কোয়ার্টারে নিয়ে যাওয়া হয়। গুলশান থানায় তার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। এছাড়া তার আই পি টিভি জয়যাত্রা কার্যালয়েও অভিযান চালাবে বলে র‍্যাব সূত্র জানিয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ৮টায় র‌্যাবের একটি টিম হেলেনা জাহাঙ্গীরের গুলশান ২ নম্বরের ৩৬ নং রোডের  বাসায় যান। অভিযানের শুরুতেই হেলেনা জাহাঙ্গীর র‍্যাব সদস্যদের দেখে অঝোরে কাঁদতে থাকেন। র‍্যাব ভবনের ৫ম তলায় হেলেনার বাসাটি তল্লাশি শুরু করে। রাত সাড়ে ১০ টায় র‍্যাবের নারী সদসসহ অতিরিক্ত সদস্য ওই বাসায় প্রবেশ করে। এসময় ওই বাসার মূল ফটক বন্ধ করে দেয়া হয়। সাংবাদিকদের ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। অভিযান শেষে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে বের করে নিয়ে আসে র‍্যাব। প্রায় চার ঘণ্টা অভিযান পরিচালনার পর হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করা হয়।

এর আগে বারবার দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে এফবিসিসিআই এর সাবেক পরিচালক হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আওয়ামী লীগের নারী বিষয়ক উপকমিটির সদস্য পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্যপদ থেকে গত রবিবার হেলেনা জাহাঙ্গীরকে অব্যাহতি দিয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। বিজ্ঞপ্তিতে উপকমিটির সদস্যসচিব ও আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ স্বাক্ষর করেন।

এতে বলা হয়, হেলেনা জাহাঙ্গীর আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্য ছিলেন। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত তার সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ড সংগঠনের নীতিবহির্ভূত হওয়ায় আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্যপদ হতে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।
জয়যাত্রা গ্রুপের কর্ণধার হেলেনা জাহাঙ্গীর নিজেকে আইপি টিভি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি হিসেবেও পরিচয় দেন।
সম্প্রতি ফেসবুকে ‘বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ’ নামের একটি সংগঠনের সভাপতি হিসেবে হেলেনা জাহাঙ্গীরের নাম আসে।
সেই কারণেই তাকে উপকমিটির পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক।

‘চাকরিজীবী লীগ’ নামে সংগঠনটির পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, তারা দুই-তিন বছর ধরেই আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন হিসেবে অনুমোদন পাওয়ার চেষ্টা করছে। তবে আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, সংগঠনটির সঙ্গে আওয়ামী লীগের কোনো সম্পর্ক নেই।