হাতে হাত রেখে ছুঁয়েছি পঁচিশ, যেতে চাই শতবর্ষ পেরিয়ে….

94
হাতে হাত রেখে
Social Share

হাতে হাত রেখে ছুঁয়েছি পঁচিশ – বৌদ্ধদের সর্ববৃহৎ বহুমুখি সমবায়ী প্রতিষ্ঠান দি বুড্ডিস্ট কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিঃ ( বিসিসিইউএল) অনেক চরায়-উৎরায় চব্বিশ পেরিয়ে আগামী ফেব্রুয়ারী প্রদার্পন করবে পঁছিশে। ঊনিশ হাজার সদস্যের প্রিয় ক্রেডিট ইউনিয়নের ২৫ বছর পুর্তি, আনন্দের এবং গৌরবের। এই আনন্দ হবে সদস্যদের মিলন মেলা, আনন্দের এবং গৌরবের মেলা।
আজকের সাধারণ ও মতবিনিময় সভায় আগামী ৩-৪ ফ্রেব্রুয়ারী জাতীয় সমবায় উৎসব ও রজতজয়ন্তী এবং চলতি বছরে রাউজানের জন্মজাত ১মজন রাউজানের অভিভাবক, আধুনিক রাউজানের রূপকার, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রেলপথ মন্ত্রণালয় বিষয় সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, রাউজানের সাংসদ সদস্য এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি মহোদয় জাতীয় মৎস্য পুরস্কার২০২০ এবং ২য়জন দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে সমবায় ও ক্রেডিট ইউনিয়ন সম্প্রসারনে বিশেষ অবদান রাখায় দু’শতাব্দীর প্রাচীন কদলপুর সুধর্মানন্দ বিহারের বিহারাধ্যক্ষ এবং দি বুড্ডিস্ট কো-অপটারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিঃ এর প্রতিষ্ঠাতা মানবতাবাদী ভদন্ত শাসন রক্ষিত ভিক্ষু মহোদয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমবায় মন্ত্রণালয় কর্তৃক জাতীয় শ্রেষ্ঠ সমবায়ী পুরস্কার-২০২০ লাভ করায় নাগরিক সংবর্ধনাসহ দু’দিনব্যাপী সাড়ম্বরে রজতজয়ন্তী করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
দেড়শতাধিক সদস্যদের উপস্থিতিতে রজতজয়ন্তীর আহবায়ক কমিটি কর্তৃ ক আহুত সাধারণ সভায় একটি শক্তিশালী কমিটি গঠণ করা হয়।


বিশাল আয়োজনকে সার্থ ক রূপায়ণে উপ-পরিষদ গঠণ, বাজেটসহ নানা কর্মসূচি সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়। সকাল ৯ টায় উপস্থিতি নিবন্ধন ও স্বাক্ষর শুরুর মধ্য দিয়ে মতবিনিময় সভার সূচনা করেন প্রতিষ্ঠাতা ভদন্ত শাসন রক্ষিত ভিক্ষু মহোদয়।
উদযাপন কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী এপেক্সিয়ান মৃনাল কান্তি বড়ুয়ার আহবানে সঞ্চালনার দায়িত্বপালন করেন সেক্রেটারী ভদন্ত প্রজ্ঞাশ্রী ভিক্ষু মহোদয়। সকাল ১০টায় প্রজ্ঞাশ্রী ভিক্ষুর আহবানে সকলে আসন গ্রহণ এবং সমবেত ত্রিপিটক পাঠের মধ্য দিয়ে সভার কার্যক্রম শুরু হয়।
উপস্থিত সকলে স্ব-স্ব পরিচিতি প্রদানের পর সভাপতি ভদন্ত শাসন রক্ষিত ভিক্ষুর স্বাগত বক্তব্য প্রদানের পর পুর্ণাঙ্গ কমিটি, আয় ও ব্যয় বাজেট এবং রজতজয়ন্তীর কর্ম সূচি উপস্থাপন করেন আহবায়ক কমিটির সচিব অধ্যাপক উজ্জ্বল মুৎসুদ্দী।
হাতে হাত রেখে ছুঁয়েছি পঁচিশ, যেতে চাই শতবর্ষ পেরিয়ে…. এই প্রতিপাদ্যকে হৃদয়ে ধারণ করে মতবিনিময় ও পরামর্শ মূলক বক্তব্য প্রদান করেন গৃহায়ণ লিঃ এর এমডি প্রকৌশলী পুলক কান্তি বড়ুয়া, প্রকৌশলী অসীম বড়ুয়া, প্রকৌশলী তীর্থঙ্কর বড়ুয়া, অডিটর সুব্রত মুৎসুদ্দী, জেলা উপ-নিবন্ধক মিন্টু বড়ুয়া, চারু প্রকাশনার সত্বাধিকারী চারু উত্তম বড়ুয়া, বাংলাদেশ বৌদ্ধ সমিতি যুব এর মহাসচিব ও যুবনেতা বাবু স্বপন কুমার বড়ুয়া, চারু লতার সদস্য বিপ্লব বড়ুয়া, অধ্যাপিকা মিনাক্ষী বড়ুয়া, ফেনী ফায়ার সার্ভিস এর উদ্ধতন কর্মকর্তা পুর্ণচন্দ্র বড়ুয়া, ব্যাংকার উপমা বড়ুয়া, সমাজ সেবক তরুন বড়ুয়া, লায়ন লোকপ্রিয় বড়ুয়া, রূপস মুৎসুদ্দী,জিনাংসু বড়ুয়া,মানবিক সংগঠন মৈত্রী বন্ধন এর পরিচালক আকাশ বড়ুয়া বাবুন, একমুঠো বৌদ্ধ তরুন বরে সদস্য সরিৎ চৌধুরী সাজু, বিসিসি্িউএল এর প্রাক্তন চেয়ারম্যান ডাঃ দিবাকর বড়ুয়া, শিক্ষক জ্যোতিষ চন্দ্র বড়ুয়া,অধ্যাপিকা পুষ্প বড়ুয়া, বাচিক শিল্পী ও তুখর আবৃতিকার সমুদ্র টিটু বড়ুয়া,সমীরণ বড়ুয়া, শিক্ষক রাজু প্রসাদ বড়ুয়া, শিক্ষক প্রদীপ কুমার বড়ুয়া প্রমুখ।