স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন : নেতৃত্বে লড়াইয়ে নেমেছে সাবেক ছাত্রলীগ নেতারা

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন : নেতৃত্বে লড়াইয়ে নেমেছে সাবেক ছাত্রলীগ নেতারা

জয়ন্ত আচার্য

সাত বছর পর হতে যাওয়া আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলনের মাধ্যমে নেতৃত্বে আসছে নতুন মুখ। নেতৃত্বে লড়াইয়ে নেমেছে এক ডজন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে সংগঠনটিতে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। পদ পেতে শীর্ষ নেতারা ছুটছেন প্রভাবশালী আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের বাড়ি ও অফিসে। গণ ভবনে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষনের চেষ্টা করছেন। সংগঠনটির কর্মীদের মধ্যে আলোচনা চলছে কোন নতুন মুখ আসবে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে।
আগামী ১৬ নভেম্বর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এদিন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সকালে সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন। ইতিমধ্য ১১ ও ১২ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছে সংগঠনটি দুই শাখা ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের সম্মেলন সম্মেলন । সর্বশেষ ২০১২ সালে মোল্লা আবু কাওসারকে সভাপতি এবং পঙ্কজ দেবনাথকে সাধারণ সম্পাদক করে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি হয়েছিল। সম্প্রতি ক্যাসিনোকান্ডে মোল্লা মো. আবু কাওছারকে সংগঠন থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ইচ্ছায় সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথকে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন প্রস্তুতির সকল কার্যক্রম থেকে দূরে থাকতে বলা হয়েছে। সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির দায়িত্ব পালন করছেন সহ-সভাপতি নির্মল চন্দ্র গুহ ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী মেজবাহউল সাচ্চু।

আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারনী সূত্র জানিয়েছে, আগামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃত্বে আসবে ত্যাগী ও ক্লিন ইমেজের নেতারা। এক্ষেত্রে সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের প্রাধান্য থাকবে। জানা গেছে নেতৃত্বে নির্বাচনে বিভিন্ন সংস্থার রিপোর্টকেই গুরুত্ব দেওয়া হবে। কার্যত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদের নাম আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার মতামত অনুসারে ঘোষিত হবে।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি পদে আলোচনায় এগিয়ে আছেন সম্মেলনের দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্মল রঞ্জন গুহ, গাজী মেসবাহউল হক সাচ্চু , বর্তমান কমিটির সহ সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য তানভির শাকিল জয়, সহ সভাপতি আফজালুর রহমান বাবু, সহ সভাপতি সৈয়দ নুরুল ইসলাম।

সাধারণ সম্পাদক হওয়ার দৌড়ে রয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ সোহেল রানা টিপু, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ শাকিব বাদশা, এ কে এম আজিম, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম লিটন, দফতর সম্পাদক সালে মোহাম্মদ টুটুল, সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক নাফিউল করিম নাফা। জানা গেছে স্বেচ্ছাসেবক লীগের মহানগর উ্ওর ও দক্ষিনের কমিটি কেন্দ্রীয় সম্মেলনের দিন ঘোষিত হবে।
আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও স্বেচ্ছাসেবক লীগেরে প্রথম সভাপতি আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিমের স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা কর্মীদের উপর রয়েছে বেশ প্রভাব। আগামী দিনের নেতৃত্বে প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যারা সৎ, যাদের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি রয়েছে, যারা সাহসী ও দুঃসময়ে সংগঠনের জন্য কাজ করেছে, তাদের খুঁজে বের করে আসন্ন কমিটিতে নেতা নির্বাচিত করা হবে। আগামী নেতৃত্ব স্বেচ্ছাসেবক লীগকে সঠিক এগিয়ে নিয়ে যাবে।
উল্লেখ্য আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৪ সালের ২৭ জুলাই ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের সাবেক নেতাদের সমন্বয়ে স্বেচ্ছাসেবক লীগ সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করেন ।