‘স্কুল-কলেজ খোলার মতো অবস্থা আসেনি’

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম | ছবি: সংগৃহীত
Social Share

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেছেন, করোনাভাইরাসের কারণে স্কুল-কলেজ খোলার মতো অবস্থা এসেছে বলে তাঁদের কাছে মনে হচ্ছে না। তবে এইচএসসি ও জেএসসি এবং প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার বিষয়টি কীভাবে করা যায়, তা নিয়ে চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। আর কওমি মাদ্রাসার উচ্চস্তরের পরীক্ষা (দাওরায়ে হাদিস) নেওয়ার বিষয়ে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

আজ সোমবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকের পর সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব এসব কথা বলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব। এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্ব ভার্চ্যুয়ালি অনুষ্ঠিত হয় মন্ত্রিসভার বৈঠক।
বৈঠকে ‘দ্য বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরেশন (সংশোধন) অর্ডার, ১৯৭৩’ অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, প্রস্তাবিত আইনে অনুমোদিত মূলধন এক হাজার কোটি টাকা এবং পরিশোধিত মূলধন ৫০০ কোটি টাকা করা হয়েছে। এখন তা কম। এর ফলে এর পরিধি যেমন বাড়বে, তেমনি অনেক কাজ করা যাবে। এ ছাড়া আইন ভঙ্গের অপরাধের জন্য শাস্তি-জরিমানাও বাড়ানো হয়েছে।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, মন্ত্রিসভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে ১৯৭২ সাল থেকে ১৯৭৫-এর ১৫ আগস্ট পর্যন্ত কোনো আইনের সংশোধনের প্রয়োজন হলে সেগুলো নতুন আইন না করে সংশোধন আকারে হবে। ওই সময়ে রাষ্ট্রের ব্যবস্থাপনা কেমন ছিল, সেটা বোঝার জন্যই এটি করা হয়েছে।

বৈঠকে ‘জাতীয় খাদ্য ও পুষ্টিনিরাপত্তা নীতি’ অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। পুষ্টি পরিস্থিতি উন্নয়নের জন্য এই নীতি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার সঙ্গে মিল রেখে এই নীতি করা হয়েছে।
এ ছাড়া বৈঠকে ব্যাংকার বহি সাক্ষ্য আইনের খসড়া অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।