সৌরভ গাঙ্গুলী কে দলের সিনিয়ররাই ফেরাতে চাননি’ -চ্যাপেলের বোমা!

77
সৌরভ গাঙ্গুলী
Social Share

সৌরভ গাঙ্গুলীর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শেষ হওয়ার পেছনে সবচেয়ে বেশি দায়ী ব্যক্তিটির নাম গ্রেগ চ্যাপেল। ভারতের সাবেক সফলতম অধিনায়ক তথা বর্তমান বিসিসিআই সভাপতি। অথচ গ্রেগকে তৎকালীন অধিনায়ক সৌরভই কোচ হিসেবে আসার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। এরপর কোচ হিসেবে এসে ভারতীয় দলটাকেই ছন্নছাড়া বানিয়ে চাকরি হারান গ্রেগ। এবার নিজের নতুন বই ‘নট আউট’-এ আবারও এত বছর আগের সেই বিতর্ক নতুন করে উসকে দিয়েছেন এই অস্ট্রেলিয়ান কোচ।

বইতে গ্রেগ লিখেছেন, ‘২০০৫ সালে আমার ভারতীয় কোচিংয়ের শুরুর দিকে শ্রীলঙ্কা সফরে যেতে হয়েছিল। ত্রিদেশীয় সেই সিরিজে স্লো ওভার রেটের কারণে নির্বাসনে ছিল সৌরভ। সেই সময় বিসিসিআইয়ের প্রভাবশালী কর্মকর্তা ছিলেন জগমোহন ডালমিয়া। তিনি আমাকে জিজ্ঞেস করেন- গ্রেগ তুমি কি চাও সৌরভ এই ট্যুরে যাক? সেটা আমি ব্যবস্থা করতে পারি। আমি বললাম- নিয়মের বাইরে গিয়ে কিছু করা ঠিক হবে না। তা ছাড়া দ্রাবিড়কেও এই সুযোগে দেখে নেওয়া যাবে। অন্যান্য অপশন নিয়েও সেই মতো প্ল্যানিং করা যাবে। আমায় বক্তব্যে সন্তুষ্ট হন ডালমিয়া। আমরাও সেই সফরে সৌরভকে ছাড়া খেলতে নামি।’

এরপর বিস্ফোরক ঘটনা সামনে এনে অজি কোচ লিখেছেন, সফরের মাঝপথে দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের আপত্তি সত্ত্বেও সৌরভকে দলে নেওয়া হয়েছিল! তার ভাষায়, ‘সৌরভকে ছাড়া দল আমূল বদলে গিয়েছিল। তবে সফরের মাঝপথে সৌরভের নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ায় সে দলে জায়গা পাওয়ার দাবিদার হয়ে ওঠে। সেই সময় কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটারের সঙ্গে আলোচনা করি সৌরভের প্রত্যাবর্তন নিয়ে। সেই সময় সবাই পরিষ্কার করে বলেছিল, তারা সৌরভকে আবারও দলে দেখতে চায় না। তা সত্ত্বেও নির্বাচকরা সৌরভকে নিয়ে আসে।’

খ্যাতিমান কোচ জন রাইটের পর ২০০৫ সালে ভারতীয় দলের দায়িত্ব নেন গ্রেগ চ্যাপেল। দুই বছরের মেয়াদে তাকে ঘিরে বিতর্কই বেশি হয়েছে। সৌরভ তো বটেই, দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদেরও বিরাগভাজন হন তিনি।

ভারতীয় ক্রিকেট সমর্থকরা তো গ্রেগের ওপর ভীষণ ক্ষিপ্ত ছিলেন। সৌরভকে নিয়ে গ্রেগ বলেছেন, ‘সে একেবারেই পরিশ্রম করতে চাইত না। নিজের খেলার উন্নতি করতেও তার সমস্যা ছিল। সে স্রেফ দলের ক্যাপ্টেন হতে চাইত, যাতে সব কিছু তার নিয়ন্ত্রণে থাকে।’ অবশ্য সৌরভ একটি অনুষ্ঠানে বলেছিলেন, গ্রেগকে কোচ বানানোই ছিল সবচেয়ে বড় ভুল। সে দলে বিভেদ তৈরি করেছিল।