সোমবারই জানা যাবে বিরোধী দলনেতা কে?

56
Social Share

একুশের নির্বাচনে বাংলায় বিজেপির টার্গেট ছিল ২০০টি আসন জেতা। সেই লক্ষ্য নিয়েই প্রাণপণ লড়াই করেছিল গেরুয়া শিবির। কিন্তু ভোটে মাত্র ৭৬টি আসন পেয়েছে বিজেপি। রাজ্য বিজেপির এক অংশের অভিযোগ, রাজ্য নেতৃত্বকে গুরুত্ব না দিয়ে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের অতিসক্রিয়তাই বাংলায় ভরাডুবির জন্য দায়ী।

আবার রাজ্য বিজেপির একাংশের কথায়, বিরোধী দলের মর্যাদা পেয়ে খুশি তাঁরা। দলীয় নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, এই ফলাফল দলের কাছে ‘ঐতিহাসিক সাফল্য’। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি মাত্র তিনটে আসন পেয়েছিল। সেই দিক থেকে বলতে গেলে ঐতিহাসিক।

তবে এবার কে হবেন বিধানসভায় বিরোধী দলনেতা? এ বিষয়ে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, কে বিরোধী দলনেতা হবেন, তা সোমবার চূড়ান্ত করা হবে। এখনই এ বিষয়ে মন্তব্য করা সম্ভব নয়।

বিজেপির বিরোধী দলনেতা ঠিক করতে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ (Ravi Shankar Prasad) ও বিজেপির সাধারণ সম্পাদক ভূপেন্দ্র যাদবকে (Bhupendra Yadav)। তাঁরাই রাজ্যের বিরোধী দলনেতার নাম ঠিক করবেন।

সূত্রের খবর, বিরোধী দলনেতার দৌঁড়ে নাম রয়েছে তৃণমূলত্যাগী মুকুল রায় ও শুভেন্দু অধিকারীর। জীবনে প্রথমবার বিধানসভা ভোটে জয় পেয়েছেন মুকুল রায়। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারিয়ে ‘জায়েন্ট কিলার’ হয়ে ওঠা শুভেন্দু অধিকারী দৌঁড়ে এগিয়ে রয়েছেন বলে খবর।

আবার এমনটাও শোনা যাচ্ছে, দলত্যাগী কেউ নয়, সংঘ ঘনিষ্ঠ কাউকে করা হবে বিরোধী দলনেতা।  সেক্ষেত্রে গত পাঁচ বছর বিধানসভায় বিজেপির পরিষদীয় নেতা মনোজ টিগ্গার নামও উঠে আসছে।