সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে পিয়াজ আসলেও বাজার অস্থির

দুর্গা পূজার ছুটি শেষে গত শনিবার থেকে সোনামসজিদ স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম শুরু হওয়ায় মঙ্গলবার থেকে আবারও পিয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে।

গত দুই দিনে ভারত থেকে ৮৩টি পিয়াজ ভর্তি ট্রাক প্রবেশ করেছে বলে সোনামসজিদ স্থলবন্দর পানামা পোর্ট লিংক লিমিটেডের ম্যানেজার (অপারেশন) ও সোনামসজিদ কাস্টমমসের উপ-রাজস্ব কর্মকর্তা বুলবুল এই তথ্য জানিয়েছেন।

অন্যদিকে সোনামসজিদ স্থলবন্দর সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মেশবাহুল হক মেসবাহ জানিয়েছেন, গত তিন দিনে ভারত থেকে ১ হাজার ৩’শ মেট্টিক টন পিয়াজ সোনামসজিদ স্থলবন্দরে প্রবেশ করেছে।

এদিকে, গত ২৮ সেপ্টেম্বরের আগে এলসি করা পিয়াজ ভারত থেকে আগামী ২৮ অক্টোবরের মধ্যে সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে প্রবেশ করবে। এদিকে ভারত থেকে পিয়াজ আমদানি শুরু হলেও জেলার কতিপয় ব্যবসায়ী অধিক মুনাফার আশায় পিয়াজ মজুদ রেখে বাজার অস্থির করে তুলছে। প্রশাসনের সঠিক নজরদারী না থাকার কারণেই এই অবস্থার সৃষ্টি হচ্ছে বলে মনে করছেন সাধারণ ব্যবসায়ীরা।

বুধবার চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাজারে দেশি পিয়াজ ৮৫ থেকে ৯০টাকা কেজি দরে এবং ভারতীয় পিয়াজ ৭৫ থেকে ৮০টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে দেখা গেছে মাঝে মধ্যে বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালালে পিয়াজের দাম কমে যায় এবং তারা চলে যাবার পর পরই আবার দাম বেড়ে যায়। জেলার একটি ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট পিয়াজের বাজার অস্থির করে তুলছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

এদিকে সাধারণ ক্রেতারা মনে করছেন, পিয়াজ মজুদ রেখে বাজার অস্থির করে তুলছে কতিপয় সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীরা। মজুদ করা গুদামে অভিযান চালিয়ে তা বাজেয়াপ্ত করে খোলাবাজারে বিক্রির ব্যবস্থা করা হলে বাজারে পিয়াজের স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসবে বলে মনে করেন সাধারণ ক্রেতারা।