সেনা সদস্যের স্ত্রীকে পিষে মারা অবৈধ মাটি টানা ট্রাক্টরটি এখনো দাপিয়ে বেড়াচ্ছে !

82
Social Share
মাহফুজুর রহমান, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহের শৈলকুপা শহরের কদমতলা নামক স্থানে ট্রাক্টরের চাকায় পৃষ্ঠ হয়ে মারা যান সেনা সদস্যের স্ত্রী শাহানারা খাতুন। আহত হন তার স্বামী রাজিবও। কিন্তু এ ঘটনার চার দিন অতিবাহিত হলেও ঘাতক ট্রাক্টরটি আটক করা হয়নি। বহাল তবিয়তে এখনো ট্রাক্টরটি শৈলকুপার পৌর এলাকার কাজীপাড়ায় অবস্থিত আশা ইট ভাটার মাটি টেনেই চলেছে। ট্রাক্টরটি কেন আটক করা হচ্ছে না এ নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এদিকে ঘাতক ট্রাক্টরটি সেনা সদস্যের স্ত্রীকে পিষে মারার ভিডিও ফুটেজ এখন শৈলকুপার সাধারণ মানুষের মোবাইলে মোবাইলে ঘুরছে। ট্রাক্টর মালিক প্রভাবশালী হওয়ায় আটক করা হচ্ছে না বলে অনেকের অভিযোগ। যশোর সেনানিবাসের ৩০ বেঙ্গলে কর্মরত সেনা সদস্য রাজিবের চাচাত ভাই আবুল হোসেন জানান, রাজিবের স্ত্রী মারা যাওয়ার কয়েকদিন আগে তার মাও মারা যান। দুর্ঘটনায় রাজিবের অবস্থাও আশংকাজনক। এ কারণে এখনো শৈলকুপা থানায় অভিযোগ দিতে পারেনি। রোগী নিয়ে আমরা দৌড়াদড়ি করছি। শৈলকুপা থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, এখনো কোন অভিযোগ আসেনি তাই মামলা হয়নি। আমরা এই ট্রাক্টরের চাকায় পিষ্ট হয়ে মারা যাওয়ার ঘটনাটি আপনাদের মাধ্যমে শুনছি। উল্লেখ্য গত শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) শৈলকুপায় ইট ভাটার মাটি টানা ট্রাক্টরের চাকায় পিষ্ঠ হয়ে আহত হন এক সেনা সদস্যের স্ত্রী। প্রথমে তাকে শৈলকুপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে যশোর সিএমএইচ-এ ভর্তি করা হলে তিনি মারা যান। নিহত সেনা সদস্যের স্ত্রী শাহানারা খাতুন (৩৫) বালিয়াকান্দি উপজেলার চর দক্ষিণ বাড়ি গ্রামের মেছের আলীর মেয়ে। সেনা সদস্য রাজিব কালুখালী উপজেলার মোহনপুর গ্রামের তাজু মন্ডলের ছেলে। রাজিবও বর্তমানে যশোর সিএমএইচ হাসপাতালে মৃত্যু শয্যায় বলে তার ভাই আবুল হোসেন জানান।