সুস্থতার জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন মাশরাফি

Social Share

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা তার সুস্থতার জন্য সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন। প্রাণঘাতি এই ভাইরাসে আজ আক্রান্ত হয়েছেন তিনি।
বৃহস্পতিবার রাত থেকে শরীরে জ্বর অনুভব করেন নড়াইল-২ আসনে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য মাশরাফিকে তার মিরপুরস্থ বাসায় আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।
সকলের কাছে দোয়া চেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মাশরাফি লিখেছেন, ‘আজকে আমার কোভিড-১৯ ধরা পড়েছে। সবাই আমার জন্যে দোয়া করবেন যাতে খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে উঠতে পারি।
আক্রান্তের সংখ্যা দেশে এক লাখ ছাড়িয়ে গেছে। তাই সবাইকে ঘরে থাকার আহবানও জানান মাশরাফি। তিনি বলেন আমাদের সবাইকে এখন আরো সতর্ক হতে হবে। সবাই ঘর থেকে বিনা প্রয়োজনে বের না হই।
আমি বর্তমানে বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিয়ে যাচ্ছি এবং প্রয়োজনীয় বিধি নিষেধ মেনে চলছি। করোনা নিয়ে আতংক নয়, সচেতনতা বৃদ্ধি প্রয়োজন।’
গেল ১৫ জুন, মাশরাফির শাশুড়ি হোসনে আরা সিরাজও করোনায় আক্রান্ত হন। এরপর তার স্ত্রীর বোন এবং তার দুই মেয়ে কিছুদিন আগে করোনা পরীক্ষায় পজিটিভ আসে। তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য নড়াইল থেকে ঢাকা আনা হচ্ছে।
করোনা আক্রান্ত রোগিদের চিকিৎসা করা স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের খুব কাছেও গিয়েছেন মাশরাফি। কিন্তু পরিবারের কাছ থেকে নিজেকে দূরে রেখেছিলেন ম্যাশ।
সম্প্রতি জ্বরে ভুগছিলেন এবং তার শরীরের তাপমাত্রা ১০১ ডিগ্রি উঠে। এরপরই করোনা পরীক্ষা করতে নমুনা দেন তিনি। পরে তার করোনা পজিটিভ আসে।
আজ সকালে মাশরাফির শরীরের তাপমাতা ছিলো ৯৯ ডিগ্রি। কিন্তু অন্য কোন সমস্যা অনুভব করেননি তিনি।
দেশে প্রথম হাই-প্রোফাইল ক্রিকেটারদের মধ্যে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে করোনা পজিটিভ হলেন মাশরাফির। বর্তমানে বাংলাদেশে এক লাখেরও বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ইতোমধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন ১,৪২৫ জন।
করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাব শুরুর পর থেকেই নিজের নির্বাচনী এলায়কায়, ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট ও দেশের মানুষের জন্য সহায়তার জন্য পাশে দাঁড়িয়েছিলেন মাশরাফি।
করোনা আক্রান্তদের সহায়তায় নিজের ১৮ বছরের ঐতিহাসিক ব্রেসলেট নিলামে তুলেন মাশরাফি। ২০০১ সালে জাতীয় দলে যোগদানের পর থেকেই হাতে ঐ ব্রেসলেট পড়ছিলেন তিনি। নিলামে সেই ব্রেসলেটটি ৪২ লাখ টাকায় বিক্রি হয়। এই অর্থ নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনে জমা হয়। এটি দিয়ে অসহায়-দুস্থদের সহায়তা করা হবে।