সুন্দরবনে দস্যুদের আর আস্তানা করতে দেব না : র‌্যাব ডিজি

Social Share

সুন্দরবনে দস্যুদের আর আস্তানা তৈরি করতে দেওয়া হবে না। নতুন করে দস্যুতায় নামার চেষ্টা করলে তাদের পরিণতি খারাপ হবে। আমাদের গোয়েন্দা নজরদারি হতে কেউ নিজেকে আড়াল করতে পারবে না। রবিবার (২৮ জুন) দুপুরে খুলনায় র‌্যাব ৬ এর কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাবের নবনিযুক্ত মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন এ কথা বলেন।

র‌্যাব ডিজি বলেন, সুন্দরবনে নতুন করে দস্যুতায় নেমে র‌্যাব-এর সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিনজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আরো দুজন দস্যু আটক ও দুজন জেলেকে উদ্ধার করা হয়। তাদের কাছ থেকে পাঁচটি আগ্নেয়াস্ত্র, ৩৩ রাউন্ড গুলি, দেশীয় অস্ত্র, দস্যুতায় ব্যবহৃত অন্য জিনিসপত্র ও ট্রলার জব্দ করা হয়েছে। সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জের মামদো নদী, মালঞ্চ নদী, খোপড়াখালী নদী ও ফিরিঙ্গি নদী এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। গত ২৫ জুন রাত থেকে ২৮ জুন ভোর পর্যন্ত র‌্যাব অভিযান পরিচালনা করে।

নিহত দস্যুরা হলেন সাতক্ষীরার হরদহ এলাকার মো. লুৎফরের ছেলে শরিফুল ইসলাম (২৪), আশাশুনি উপজেলার বসুখালীর মৃত জামাত আলীর ছেলে হাবিবুর রহমান (২৪) ও অজ্ঞাত (২৫) একজন। এ ছাড়া আটক অপর দুজনের নাম-পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) কর্নেল তোফায়েল মোস্তফা সরোয়ার ও র‌্যাব ৬ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল রওসোনুল ফিরোজ।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী সুন্দরবনকে জলদস্যুমুক্ত ঘোষণা করেন। সুন্দরবনে এ পর্যন্ত ৩২টি বাহিনীর ৩২৮ জন জলদস্যু-বনদস্যু বিপুলপরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ র‌্যাবের নিকট আত্মসমর্পণ করে।