সুনামগঞ্জে উদ্বিগ্ন চাষিদের ধান কাটা কার্যক্রমে আনসার ও ভিডিপি

সুনামগঞ্জে উদ্বিগ্ন চাষিদের ধান কাটা কার্যক্রমে আনসার ও ভিডিপি।
Social Share

বর্তমান করোনাভাইরাস সংকট মোকাবেলায় সারাদেশে নানা কর্মসূচি পালন করছে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী। এরই অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দেশের কৃষি অর্থনীতিকে উজ্জীবিত করতে সুনামগঞ্জের চাষিদের পাশে এগিয়ে এসেছে বাহিনীটি।বর্তমান বোরো মৌসুমে ক্ষেতের পাকা ধান কাটা নিয়ে উদ্বিগ্ন সুনামগঞ্জের চাষিদের ধান কাটা কার্যক্রমে অংশ নিয়েছে বাহিনীর সদস্যরা।

আনসার ও ভিডিপির উপ-পরিচালক (যোগাযোগ)ও গণসংযোগ কর্মকর্তা (অতিঃ দায়িত্ব) মেহেনাজ তাবাস্সুম রেবিন জানান, চলতি মৌসুমে সারা দেশেই বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলার হাওড়ে এবং সমতলে ২ লাখ ১৯ হাজার ৩০০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের চাষ হয়েছে এবার। অন্যান্য বছরে দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলা গুলো থেকে এ ধান কাটার জন্য শ্রমিক আসত। কিন্ত এবার বিশ্বব্যাপী বিস্তার লাভ করা কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঢেউ বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পড়ায় দেশের প্রায় সকল জেলা লক ডাউন করা হয়েছে। ফলে অন্য জেলার শ্রমিকরা এবার সুনামগঞ্জ জেলায় আসতে না পারায় বোরো চাষিরা সীমাহীন উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে।

আনসার বাহিনী সূত্র জানায়, জেলা কমান্ডার এনামুল খাঁন সুনামগঞ্জ জেলার ৩৩টি হাওড়ের এবং সমতলের ২ লাখ ১৯ হাজার ৩০০ হেক্টর জমির বোরো ধান কাটার লক্ষ্য নিয়ে ১১টি উপজেলা থেকে তরুণ আনসার-ভিডিপি সদস্যদের নিয়ে ৪ হাজার জনের তালিকা প্রস্তুত করে জেলা প্রশাসনের নিকট হস্তান্তর করেন। সেখান থেকে এক হাজার জন বাছাইকৃত আনসার ভিডিপি সদস্যদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে গত ২১ এপ্রিল জামালগঞ্জ, জগন্নাথপুর এবং বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় এবং ২২ এপ্রিল সুনামগঞ্জ সদর, দিরাই, জগন্নাথপুর এবং বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় বোরো চাষীদের জমিতে ধান কাটা হয়। আনসার-ভিডিপি সদস্যদের অংশগ্রহণে ধান কাটার এ কর্মযজ্ঞ তদারকি করেন সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা কৃষি স¤প্রসারণ কর্মকর্তা, উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা এবং স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান।

আনসার কর্মকর্তারা জানান, করোনার বিভীষিকাময় পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী বিশ্বব্যাপী খাদ্য সংকট এমনকি দুর্ভিক্ষের আশংকাও ব্যক্ত করেছেন। তাই কৃষি উৎপাদন অব্যাহত রাখা ও খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে জোর দিয়েছেন তিনি। কোভিড-১৯ সংকটকালে উদ্বিগ্ন বোরো চাষীদের দুশ্চিন্তা মুক্ত করতে ও বিরাজমান পরিস্থিতি বাম্পার ফলনের বোরো ধান জমিতেই নষ্ট হয়ে দেশের জনগণ যেন খাদ্য সংকটে না পড়ে- এ চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে মানব নিরাপত্তার সৈনিক হিসেবে আনসার-ভিডিপি সদস্যগণ স্বতঃস্ফুর্তভাবে ধান কাটার এ গুরু দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেন।

উল্লেখ্য, সুনামগঞ্জ জেলার পাশাপাশি সিলেট জেলার ১২টি উপজেলায় ৮০ হাজার ৫৬৫ হেক্টর, হবিগঞ্জ জেলার ৬টি উপজেলায় ৪৬ হাজার ৩৬০ হেক্টর এবং মৌলভীবাজার জেলার ২টি উপজেলায় ৫৩ হাজার ৫৩০ হেক্টর জমিতে চাষ করা বোরো ধান ঘরে তুলতে ধান কাটার জন্য আনসার-ভিডিপি সদস্যদের প্রস্তুত রাখা হয়েছে।