সিলেট-৩ উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত চেয়ে আইনি নোটিশ

79
Social Share

আগামী ২৮ জুলাই অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় সংসদের সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত রাখার অনুরোধ জানিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার(সিইসি) কে এম নুরুল হুদাকে আইনি নোটিশ দেওয়া হয়েছে। ভোটগ্রহণ স্থগিত করা না হলে উচ্চ আদালতে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে নোটিশে বলা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ শিশির মনির রবিবার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে এই নোটিশ দিয়েছেন। সুপ্রিম কোর্টের অপর ৫ আইনজীবী অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ মুজাহিদুল ইসলাম, আল-রেজা মো. আমির, মো. জোবায়দুর রহমান, মো. জহিরুল ইসলাম এবং মুস্তাফিজুর রহমানের পক্ষে তিনি এই নোটিশ দিয়েছেন।

গত ১১ মার্চ সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর মৃত্যুতে আসনটি শূণ্য হয়। নির্বাচন কমিশন(ইসি) ১৫ মার্চ এক বিজ্ঞপ্তিতে ওই আসন শূণ্য ঘোষনা করে। ফলে ৯০ দিনের মধ্যে অর্থাৎ ৮ জুনের মধ্যে ওই আসনের উপনির্বাচনে বাধ্যবাধকতা থাকলেও সংবিধানের ক্ষমতাবলে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণকে দৈবদূর্বিপাক হিসেবে উল্লেখ করে আরো ৯০ দিন বাড়িয়ে নেয় ইসি। এরপর গত ২ জুন ওই উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করা হয়। এই তফসিলে ১৪ জলাই ভোটগ্রহণের দিন নর্ধারণ করা হয়। পরবর্তীতে ইসি ১৫ জুন পৃথক এক নোটিশে ভোটগ্রহণের দিন নির্ধারণ করে ২৮ জুলাই।

ওইসব তথ্য তুলে ধরে নোটিশে বলা হয়েছে, দৈবদূর্বিপাকের কারণে সংবিধান অনুযায়ী ৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নির্বাচন করার সুযোগ রয়েছে। অথচ প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) বলছেন, নির্বাচন পেছানোর কোনো সুযোগ নেই। সিইসির এই বক্তব্য সঠিক নয়।

নোটিশে বলা হয়, যে কারণে ৮ জুনের মধ্যে নির্বাচন করা সম্ভব হয়নি, সেই করণ একণ দেশে বিদ্যমান। দেশে করোনা ভাইরাসের মারাত্মক সংক্রমণ চলছে। তাই নির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত রাখা হোক। অন্যথায় উচ্চ আদালতে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।