সিনিয়রদের না থাকার ধাক্কা সামলাতে হবে লিটন-সৌম্যদের

আগামীকাল রবিবার ভারতের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ দিয়ে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ শুরু করবে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। তবে ম্যাচ ফিক্সিং না করেও নিষেধাজ্ঞার কারণে এ সিরিজে খেলতে পারছেন না দেশসেরা তারকা সাকিব আল হাসান। এ ছাড়াও পারিবারিক কারণে সিরিজ থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছেন আরেক ওপেনার তামিম ইকবালও। এর ফলে বলাই যায়, বাংলাদেশ ক্রিকেটের পঞ্চপাণ্ডবদের দুজনই নেই এ সিরিজে। তবে তা নিয়ে কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ ফেলাতে নারাজ নির্বাচক হাবিবুল বাশার। বরং তামিম-সাকিবের অনুপস্থিতিতে অন্যদের জ্বলে ওঠার দিকে তাকিয়ে আছেন তিনি।

এ নিয়ে বাশার বলেন, ‘ওদের না থাকাটা আমাদের জন্য অবশ্যই বড় ধাক্কা। কিন্তু সেটি তো সামলে উঠতে হবে। আমি নাম ধরেই বলি। লিটন ও সৌম্য জাতীয় দলে কম সময় ধরে খেলছে না। চার-পাঁচ বছর হয়ে গেছে। সিনিয়রদের ছায়ায় ওরা আর কত দিন থাকবে? এবার সময় এসেছে নিজেদের প্রতিষ্ঠা করার।’

তিনি আরো বলেন, ‘দেখুন, মাঠে খেলবে বাংলাদেশ দল। কে আছে, কে নেই-তা সামনে এনে অজুহাত দেওয়ার সুযোগ আমি দেখছি না। সেভাবে ভাবলে মাঠে নামার আগেই আমরা হেরে যাব। সেটি কিছুতেই চাই না। আমি চাই, ছেলেরা যেন নিজেদের সর্বোচ্চটা দিয়ে লড়াই করে। তাহলে ভারতকে হারানো একেবারে অসম্ভব না।’

এ সময় শুরুর ছয় ওভারে টপ অর্ডারদের দায়িত্ব নিয়েও খেলতে বললেন নির্বাচক বাশার। তিনি বলেন, ‘টি-টোয়েন্টিতে টপ অর্ডার সব সময় গুরুত্বপূর্ণ। সেটি রান করার ক্ষেত্রে, আবার উইকেট না হারানোতেও। যদি শুরুর ছয় ওভারে তিন উইকেট হারিয়ে ফেলে কোনো দল, তখন খেলা হয়ে যায় ১৪০-১৫০ রানের। এই রান করে ভারতের মাটিতে ভারতকে হারানো খুব কঠিন। ওদের হারাতে হলে ১৭০-১৮০ রান করতে হবে।’