সাম্প্রদায়িক হামলা : শাল্লায় যাচ্ছে বিএনপির প্রতিনিধি দল

61
Social Share

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার হবিপুর ইউনিয়নের সংখ্যালঘু অধ্যুষিত নোয়াগাঁও গ্রামে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়ি-ঘরে হামলা ও লুটপাটের পর উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যাচ্ছে বিএনপির একটি উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল। শনিবার (২০ মার্চ) সকালে ঢাকা থেকে প্রতিনিধি দলটি রওনা দিয়েছেন।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরীর নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলে আরো আছেন- বিএনপি নেতা গৌতম চক্রবর্তী, নারী ও শিশু অধিকার ফোরামের সদস্য সচিব নিপুণ রায় চৌধুরী প্রমুখ।

নিপুণ রায় চৌধুরী বলেন, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে আমরা নির্যাতিত মানুষের পাশে দাঁড়াতেই সেখানে যাচ্ছি। আমাদের নেতার একটিই কথা- যেখানে নির্যাতন, সেখানেই নির্যাতিত মানুষের পাশে দাঁড়াবে বিএনপি। কারণ বিএনপি হচ্ছে ধর্মীয় মূল্যবোধে বিশ্বাসী রাজনৈতিক দল।

kalerkantho

গত বুধবার নোয়াগাঁওয়ে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘরে হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেছিলেন, ‘ঐক্যবদ্ধ জনগণের প্রবল সাহসের কাছে কখনই কোনো অশুভ শক্তির উত্থান সম্ভব নয়। এ দেশের সব সম্প্রদায়কে যেকোনো উসকানির মুখে বিভ্রান্ত না হয়ে সাম্প্রদায়িক ঐক্য বিনষ্টকারী দুষ্কৃতকারীদের বিরুদ্ধে এখনই প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। যারা সংখ্যালঘুদের ওপর নির্মম হামলা চালাচ্ছে, তারা মানবজাতির শত্রু।’

‘আমি সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলায় দুষ্কৃতকারী কর্তৃক হিন্দু সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে ভাঙচুরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। অবিলম্বে হিন্দু সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে হামলাকারীদের গ্রেপ্তার এবং শাস্তির জোর দাবি করছি।’

উল্লেখ্য, হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা মামুনুল হকের সমর্থকরা ১৭ মার্চ বুধবার নোয়াগাঁও গ্রামের ৮৮ টি বাড়িতে হামলা, লুটপাট ও ভাংচুর চালায়। এসময় গ্রামের ৫ টি মন্দির ভাংচুর করা হয়। নোয়াগাঁও গ্রামের ঝুমন দাস আপন নামের এক তরুণের ফেসবুক আইডি থেকে মাওলানা মামনুল হককে কটাক্ষ করে কথিত স্ট্যাটাসের প্রতিক্রিয়ায় এ তাণ্ডব চালানো হয়। এর আগে ১৫ মার্চ সুনামগঞ্জের দিরাই স্টেডিয়ামে হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক বক্তব্য দেন। এসময় ধর্মীয় উস্কানীমূলক বক্তব্য দিয়েছিলেন মামুনুল হকসহ হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতারা।