‘সামনের ক’টা দিন আমার আসল পরীক্ষা’, হাসপাতাল থেকে বললেন ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ছবি- টুইটারের সৌজন্যে।
Social Share

করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সামনের কয়েক দিন তাঁর আসল পরীক্ষা হতে চলেছে। যেখানে ভর্তি রয়েছেন সেই হাসপাতালের ঘর থেকেই টুইটারে দেওয়া একটি ভিডিয়োয় শনিবার এ কথা জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বৃহস্পতিবার রক্তপরীক্ষায় তিনি ও তাঁর স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্প কোভিড পজিটিভ হওয়ার পর দু’জনেই পরের দিন ভর্তি হন ওয়াল্টার রিড ন্যাশনাল মিলিটারি মেডিক্যাল সেন্টারে।

তার পর থেকেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের শারীরিক অবস্থা নিয়ে কৌতূহল সর্বত্র। শনিবার হোয়াইট হাউসের পরস্পরবিরোধী বিবৃতিতে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। হোয়াইট হাউসের তরফে এক বার বলা হয় তিনি সুস্থ হয়ে উঠছেন। যে কোনও মুহূর্তেই হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে আসতে পারেন। আবার তার পরক্ষণেই জানানো হয়, আগামী কয়েক দিন ট্রাম্পের শারীরিক অবস্থা কী দাঁড়ায় তা দেখতে হবে।

এর পর গতকাল হাসপাতালের ঘর থেকে ৪ মিনিটের যে ভিডিয়ো করে তিনি টুইট করেছেন সেখানেও ট্রাম্পের বক্তব্যে পরস্পরবিরোধীতার সুরই শোনা গিয়েছে। ট্রাম্প এক বার বলেছেন, ‘আগের চেয়ে ভাল’ মনে করেছেন নিজেকে। আশা করছেন ‘তাড়াতাড়ি ফিরে যাওয়ার’। তার পর অবশ্য এও বলেছেন, ‘‘করোনার বিরুদ্ধে আমার লড়াইয়ের আসল পরীক্ষাটা হতে যাচ্ছে সামনের কয়েক দিনে।’’

হাসপাতালের ঘরে তাঁর সামনে আমেরিকার জাতীয় পতাকা। একটা গোলটেবিলে বসে গতকালের ভিডিয়োয় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, ‘‘মনে হচ্ছে, আমার আসল পরীক্ষাটা হতে যাচ্ছে সামনের কয়েক দিনের মধ্যে। তাই দেখতে চাইছি, ওই দিনগুলিতে কী হয়।’’

মার্কিন প্রেসিডেন্টের শারীরিক অবস্থা নিয়ে বিভ্রান্তির সূত্রপাত হয় শনিবার হোয়াইট হাউসের চিকিৎসকদলের বিবৃতির পরেই। হোয়াইট হাউসের টিকিৎসকেরা জানান, প্রেসিডেন্টের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। তিনি হোয়াইট হাউসে ফেরার কথাও বলতে শুরু করেছেন। এক চিকিৎসক বলেন, ‘‘উনি আমাদের বলেছেন আজই হাসপাতাল থেকে বেরতে পারব মনে হচ্ছে।’’

এর কিছু ক্ষণ পরেই হোয়াইট হাউসের চিফ অব স্টাফ মার্ক মেডস সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘গত ২৪ ঘণ্টায় প্রেসিডেন্টের শারীরিক অবস্থা বেশ উদ্বেগজনক ছিল। আগামী ৪৮ ঘণ্টা আরও সঙ্কটজনক হতে পারে। কবে উনি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠতে পারবেন সে ব্যাপারে আমাদদের কোনও স্পষ্ট ধারণা নেই।’’ তবে তাঁর এই মন্তব্যটি উদ্ধৃত করা যাবে না বলেও তিনি জানিয়ে দেন সাংবাদিকদের।

এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই মেডসকে একটি বিবৃতি দিয়ে বলতে দেখা যায়, ‘‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প খুব ভাল আছেন। চিকিৎসকরা তাঁর সেরে ওঠার লক্ষণগুলি দেখতে পেয়ে খুব খুশি।’’