সাংবাদিকদের দোষ দিয়ে ভালো খেলা যায় না : মাশরাফি

Social Share

খেলোয়াড়দের সমালোচনা করায় ইংলিশ মিডিয়ার খ্যাতি কিংবা কুখ্যাতি বিশ্বজোড়া। তারা কাউকে ছেড়ে কথা বলে না। কিন্তু বাংলাদেশের মিডিয়া এক্ষেত্রে বেশ সহনশীল। কোনো ক্রিকেটার ভালো করলে সংবাদমাধ্যমে তার উচ্ছসিত প্রশংসা করা হয়। ছাপা হয় নানারকম গল্প। কিন্তু তার মানে এই নয় যে, ওই ক্রিকেটার কখনো খারাপ পারফর্ম করলে সেই খবরটি গণমাধ্যমে আসবে না। এই পেশাদারিত্বের কথাটিই মনে করিয়ে দিলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটারের পরামর্শ হবে মুমিনুল হক কিংবা ইমরুল কায়েসের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

ভারতের বিপক্ষে ইন্দোর টেস্টে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার পর সাংবাদিকদের দোষ দিয়ে অধিনায়ক মুমিনুল হক বলেছিলেন, ‘আমরা যখন কোনো সিরিজ খেলতে নামি, আপনাদের একটা বড় ভূমিকা থাকে। আপনারা কিছু মনে করবেন না প্লিজ, এমনভাবে সব প্রশ্ন করেন, যেমন ধরুন রশিদ খান আছে, সেটা বারবার মনে করিয়ে দিতে থাকেন। আপনি যতই সেটা চিন্তা না করতে চান, আপনাকে ভাবিয়ে তুলবেই।’

এরপর গতকাল বিপিএলে ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলে একইভাবে সাংবাদিকদের দোষারোপ করেন ইমরুল কায়েস। ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো খেলেন কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খারাপ কেন- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি মুখে হাসি নিয়েই বলেন, ‘আপনাদের এই বলার জন্যই ছন্দ হারিয়ে ফেলছি! ফর্মে থাকতে থাকতে ফর্ম হারিয়ে ফেলি!’

আজ ঢাকা-রাজশাহীর ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফিকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘বিষয়টা ব্যক্তিগতভাবে না নেওয়াই ভালো। অনেকে হয়তো মিডিয়ার চাপ সামলাতে অতটা অভ্যস্ত নয়। অনেক খেলোয়াড় আছে, যারা বাইরের অনেক কিছু খেয়াল করে। আমি খারাপ করলে আপনারা লিখবেন, ভালো করলেও লিখবেন। আমার কাছে মনে হয়, অনেকে (খেলোয়াড়েরা) এগুলো পড়ে বা দেখে। চাপটা চলে আসে বা মাথায় নিয়ে নেয়।’

দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা থেকে সতীর্থদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শও দেন ম্যাশ, ‘পেশাগত দিক দিয়ে চিন্তা করলে আপনারাও (সাংবাদিকেরা) একটা জায়গায় আছেন, খেলোয়াড়রাও একটা জায়গায় আছে। সবাই যে যার জায়গা থেকে কাজ করবে, এটাই স্বাভাবিক। সংবাদমাধ্যমকে দোষ দিয়ে তো লাভ নেই। সংবাদমাধ্যমকে দোষ দিয়ে ভালোও খেলা যাবে না। সংবাদমাধ্যমকে যদি দোষ দিয়েই থাকে, সেটা মাঠের খারাপ পারফরম্যান্সের কারণেই। যা লেখা হয়, সেটা যদি মনে হয় যে মানসিকভাবে চাপে ফেলে দেবে তাহলে তা এড়িয়ে চলাই ভালো। যার যে পেশা সেটিতে স্থিতিশীল হওয়া জরুরি। আপনি খেলোয়াড়, খেলা নিয়েই চিন্তা করুন।’