‘শুধু জামিন নয়, রোজিনার মামলা প্রত্যাহার করতে হবে’

53
Social Share

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের বলেছেন, শুধু জামিন নয়, সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। পাশাপাশি সাংবাদিক সুরক্ষা আইন তৈরি জরুরি হয়ে পড়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

তথ্য চুরির অভিযোগে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের করা মামলা সাংবাদিক রোজিনার জামিন আদেশের পর আজ রবিবার (২৩ মে) এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন জি এম কাদের।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, সেনা বিদ্রোহ ও রাষ্ট্রীয় ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে ১০০ বছর আগে অফিশিয়াল সিক্রেট অ্যাক্ট তৈরি করে ব্রিটিশ সরকার। এই আইন তৈরি হয়েছে সেনা সদস্য ও সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে। ব্রিটিশ রাজাদের রাজত্ব কায়েম রাখার জন্য এ আইন ব্যবহৃত হয়েছে, যা এখন অপ্রয়োজনীয়। তাই অফিশিয়াল সিক্রেট অ্যাক্টে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা নজিরবিহীন। স্বাধীন ও গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে ব্রিটিশদের তৈরি অফিশিয়াল  সিক্রেট অ্যাক্ট এখন মেয়াদোত্তীর্ণ কালো আইন। উপমহাদেশে এই আইনে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে শাস্তির নজির নেই।

জি এম কাদের বলেন, অফিশিয়াল সিক্রেট অ্যাক্ট সংবিধান, গণতন্ত্র ও তথ্য অধিকার আইনের পরিপন্থী। ব্রিটিশ সাম্রাজ্য টিকিয়ে রাখতে করা এই আইন এখন অপ্রয়োজনীয়। তাই অফিশিয়াল সিক্রেট আইনে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা চলতে পারে না।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান আরো বলেন, সংবিধান অনুযায়ী বিদেশের সঙ্গে সব চুক্তি সংসদে উপস্থাপন করেত হবে। তা ছাড়া টিকা কেনাকাটা কখনোই রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা হতে পারে না। তিনি বলেন, সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে ফাঁসিয়ে দেওয়া হয়েছে। অফিশিয়াল সিক্রেট আইন রোজিনার বিরুদ্ধে প্রযোজ্য নয়। তা ছাড়া দেশের টাকায় টিকা কেনাকাটার খবর জানার অধিকার জনগণের রয়েছে। এ কারণেই তথ্য সংগ্রহ কখনোই চুরি হতে পারে না। তাই প্রথম আলোর অনুসন্ধানী প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলা প্রত্যাহার করতে হবে ।