শিগগিরই ইরান সরকারের পতন?

সম্প্রতি জিনিসপত্রের দামবৃদ্ধির মতো অর্থনৈতিক ইস্যু নিয়ে প্রতিবাদ শুরু হয় ইরানে। সেই প্রতিবাদে বিক্ষোভকারীরা ধর্মীয় নেতা-নিয়ন্ত্রিত ইরানি সরকারকে উৎখাত করার ডাকও দিয়েছিলেন। আর এবারও শুরু হয়েছে বিক্ষোভ। কিন্তু এবার বিক্ষোভ শুরু হয়েছে ইউক্রেনের বিমান ধ্বংসের ঘটান নিয়ে। এমন পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাসিত ইরানের প্রাক্তন শাহ’র পুত্র রেজা পাহলভি বলেছেন, কয়েক মাসের মধ্যেই বর্তমান ইরান সরকারের পতন হবে। এই বিষয়ে তিনি পশ্চিমা দেশগুলোকে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ না করার আহ্বান জানান।

চার যুগ আগে দেশ ছেড়েছেন ইরানের প্রাক্তন শাহ’র পুত্র রেজা পাহলভি। বর্তমানে পাহলভি নির্বাসিত জীবন যাপন করছেন যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটনে। সেখানেই এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। ইরানের ক্ষমতাচ্যুত রাজতন্ত্রের উত্তরাধিকারী রেজা পাহলভি বলেন, ইরান সরকারে পতন সময়ের ব্যাপার মাত্র। আমি মনে করি, আমরা এমনই এক পরিস্থিতিতে রয়েছি।

রেজা পাহলভি বলেন, এই সপ্তাহ বা কয়েক মাসের মধ্যেই ইরান সরকার তার পতনের দিকে এগিয়ে যাবে। ১৯৭৮ সালের শেষ তিনি মাস যেমন পরিস্থিতি ছিল; আজও ইরান সেই দিকেই এগিয়ে যাচ্ছে। ইরানিরা গত ৪০ বছর আগে সরকার পতনের গন্ধ পেয়েছিল আজও সেই স্বাদ নেওয়ার সুযোগ পেতে যাচ্ছে।

ইরান নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কর্মসূচিকে সমর্থন জানিয়ে তিনি বলেন, ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের অতীতের আলোচনার ব্যর্থ হয়েছে। ইরানে কোনো সাধারণ সরকার ক্ষমতায় নেই। খুব দ্রুত এই সরকার তার ব্যবহার পরিবর্তন করবে না। দেশবাসী বুঝতে পেরেছেন যে, এই শাসনব্যবস্থাটি সংস্কার করা যাবে না এবং অবশ্যই তাকে অপসারণ করা উচিত। রেজা পাহলভি জানান, তিনি ইরানিদের বড় একটি জোটকে সমর্থন করতে চান। যারা দেশটিতে একটি ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক সরকার গঠন করবে।