শব্দের চেয়ে ২৭গুণ গতির ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন রাশিয়ার

দক্ষিণ উরাল পর্বতমালার ওরেনবার্গ অঞ্চলে অ্যাভ্যানগার্ড হাইপারসোনিক ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করেছে রাশিয়া। শুক্রবার রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানায়, রাশিয়ার নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি এই ক্ষেপণাস্ত্রের গতি শব্দের চেয়ে ২৭ গুণ বেশি।

রুশ সামরিক বাহিনীর উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাদের বৈঠকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী সার্গেই শইগু জানান, মস্কোর স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় এ ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করা হয়। সামরিক বাহিনী ও সমগ্র জাতির জন্য এটি বৃহত্তর এক অর্জন বলে রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানান।

১৯৫৭ সালের সোভিয়েত আমলে মহাকাশে উপগ্রহ পাঠানোর মতই আন্তঃমহাদেশিয় এ ক্ষেপণাস্ত্রকে রুশ প্রযুক্তিক্ষেত্রের বড় অর্জন হিসেবে উল্লেখ করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

২০১৮ সালের মার্চে জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে তিনি প্রথম অ্যাভেনগার্ড ক্ষেপণাস্ত্রের কথা উল্লেখ করেন। বলেন, এটি উল্কার অগ্নিগোলকের মতো আঘাত হানবে।

ক্ষেপণাস্ত্রটি দুই হাজার সেলসিয়াস তাপমাত্রা সহ্যক্ষমতার সরঞ্জাম দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। এটি দুই মেগাটনেরও বেশি ওজনের পরমাণু অস্ত্র বহন করতে পারবে।

২০১৮ সালের ডিসেম্বরে এ ক্ষেপণাস্ত্রটির পরীক্ষা চালানো হয়। দেশটির গুরুত্বপূর্ণ এক সামরিক ঘাঁটি থেকে চালানো এ পরীক্ষায় ক্ষেপণাস্ত্রটি ৬ হাজার কিলোমিটার (৩ হাজার ৭০০ মাইল) পথ পাড়ি দিয়ে সফলভাবে নির্ধারিত লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানে।

সফল পরীক্ষার পর প্রেসিডেন্ট পুতিন সেসময় একে যেকোনো ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থায় অপ্রতিরোধ্য হিসেবে উল্লেখ করেন।