লকডাউনে পার্টি; বরিস জনসনের পদত্যাগ চান দলের নেতারা

44
লকডাউনে পার্টি
Social Share

লকডাউনে পার্টি ; মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেওয়া বিধিনিষেধ লঙ্ঘন করে বিপাকে পড়েছেন বরিস জনসন। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী স্বীকার করেছেন, তিনি লকডাউনে পার্টিতে যোগ দিয়েছেন। এরপরপরই তার দলের নেতারা দাবি করেছেন, প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে বরিসকে পদত্যাগ করতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার বিবিসি অনলাইন এ খবর প্রকাশ করেছে। ২০২০ সালে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ডাউনিং স্ট্রিটে ওই পার্টির আয়োজন করেছিলেন বরিস। সে জন্যও ক্ষমাও চেয়েছেন। 

উপপ্রধানমন্ত্রী ডোমিনিক রাবসহ মন্ত্রিসভার সদস্যরা বরিসের পক্ষ নিয়েছেন। তবে স্কটিশ টোরি নেতা ডগলাস রস ও সংসদ সদস্য উইলিয়াম রাগ, ক্যারোলিন নোকস, রজার গেল বরিসের পদত্যাগের দাবি তুলেছেন। 

ডগলাস রস বলেন, ‌‌‘বরিস জনসন প্রধানমন্ত্রী, এটা তারই সরকার। তার সরকারই লকডাউন দিয়েছে। তিনি তা লঙ্ঘন করেছেন, তাই তাকে শাস্তির আওতায় আনতে হবে।’ 

…………………………………………………………………………………………………

লকডাউনে পার্টি ; মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেওয়া বিধিনিষেধ লঙ্ঘন করে বিপাকে পড়েছেন বরিস জনসন। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী স্বীকার করেছেন, তিনি লকডাউনে পার্টিতে যোগ দিয়েছেন। এরপরপরই তার দলের নেতারা দাবি করেছেন, প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে বরিসকে পদত্যাগ করতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার বিবিসি অনলাইন এ খবর প্রকাশ করেছে। ২০২০ সালে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ডাউনিং স্ট্রিটে ওই পার্টির আয়োজন করেছিলেন বরিস। সে জন্যও ক্ষমাও চেয়েছেন। 

উপপ্রধানমন্ত্রী ডোমিনিক রাবসহ মন্ত্রিসভার সদস্যরা বরিসের পক্ষ নিয়েছেন। তবে স্কটিশ টোরি নেতা ডগলাস রস ও সংসদ সদস্য উইলিয়াম রাগ, ক্যারোলিন নোকস, রজার গেল বরিসের পদত্যাগের দাবি তুলেছেন। 

ডগলাস রস বলেন, ‌‌‘বরিস জনসন প্রধানমন্ত্রী, এটা তারই সরকার। তার সরকারই লকডাউন দিয়েছে। তিনি তা লঙ্ঘন করেছেন, তাই তাকে শাস্তির আওতায় আনতে হবে।’ 

মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেওয়া বিধিনিষেধ লঙ্ঘন করে বিপাকে পড়েছেন বরিস জনসন। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী স্বীকার করেছেন, তিনি লকডাউনে পার্টিতে যোগ দিয়েছেন। এরপরপরই তার দলের নেতারা দাবি করেছেন, প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে বরিসকে পদত্যাগ করতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার বিবিসি অনলাইন এ খবর প্রকাশ করেছে। ২০২০ সালে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ডাউনিং স্ট্রিটে ওই পার্টির আয়োজন করেছিলেন বরিস। সে জন্যও ক্ষমাও চেয়েছেন। 

উপপ্রধানমন্ত্রী ডোমিনিক রাবসহ মন্ত্রিসভার সদস্যরা বরিসের পক্ষ নিয়েছেন। তবে স্কটিশ টোরি নেতা ডগলাস রস ও সংসদ সদস্য উইলিয়াম রাগ, ক্যারোলিন নোকস, রজার গেল বরিসের পদত্যাগের দাবি তুলেছেন। 

ডগলাস রস বলেন, ‌‌‘বরিস জনসন প্রধানমন্ত্রী, এটা তারই সরকার। তার সরকারই লকডাউন দিয়েছে। তিনি তা লঙ্ঘন করেছেন, তাই তাকে শাস্তির আওতায় আনতে হবে।’