লকডাউনের ভেতর প্রবাসীদের দেশে না আসার অনুরোধ

32
Social Share

করোনা সংক্রমণরোধে সরকারঘোষিত লকডাউন চলাকালে প্রবাসী বাংলাদেশিদের জরুরি প্রয়োজন ছাড়া দেশে না আসার অনুরোধ জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এ লক্ষ্যে বিদেশের বাংলাদেশ মিশনগুলোকে নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে।

চলমান লকডাউনে বাংলাদেশে আটকে পড়া প্রবাসীদের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে কেবল পাঁচটি দেশের সঙ্গে বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এ পাঁচটি দেশ হলো সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার, ওমান ও সিঙ্গাপুর। লকডাউনের মধ্যেও এসব দেশে প্রবাসীরা যেতে পারবেন। তবে বিদেশ থেকে এখনই প্রবাসীদের বাংলাদেশে না আসার অনুরোধ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে বিদেশের মিশনগুলোকে উদ্যোগ নিতে নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বিদেশের বাংলাদেশ মিশনগুলোতে এ বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়ার পর মিশনগুলোও সে অনুযায়ী পদক্ষেপ নিতে শুরু করেছে। বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর বাংলাদেশ মিশন জরুরি প্রয়োজন ছাড়া প্রবাসীদের দেশে না ফেরার আহ্বান জানিয়েছে। মধ্যপ্রাচ্যের সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার প্রভৃতি দেশ জরুরিভাবে প্রবাসীদের বাংলাদেশ ভ্রমণে নিরুৎসাহিত করছে।

এরই মধ্যে জরুরি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে কাতারের বাংলাদেশ দূতাবাস। এতে লকডাউনে প্রবাসীদের দেশে না ফেরার আহ্বান জানানো হয়েছে। কাতার মিশন প্রবাসীদের উদ্দেশে বলেছে, জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কাতারে বসবাসরত বাংলাদেশি নাগরিকসহ সবাইকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ ভ্রমণে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। এই সময়ের মধ্যে বাংলাদেশে গেলে ৭২ ঘণ্টা আগে করা পরীক্ষা অনুযায়ী করোনা নেগেটিভ সনদ থাকতে হবে। এ ছাড়া ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকাসহ বিভিন্ন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, প্রবাসীদের জন্য একই ধরনের নির্দেশনা দিয়েছে আবুধাবির বাংলাদেশ মিশনও। মিশন থেকে দেওয়া নির্দেশনায় বলা হয়েছে, করোনা পরিস্থিতিতে অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ ভ্রমণ পরিহার করার জন্য পরামর্শ দেওয়া যাচ্ছে। এ ছাড়া জরুরি প্রয়োজনে দেশে ফিরলে সরকারের অনুমোদিত হোটেল/প্রতিষ্ঠানে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে বলেও জানিয়েছে আবুধাবির বাংলাদেশ দূতাবাস।

সৌদি আরবের বাংলাদেশ দূতাবাস এক জরুরি বার্তায় সে দেশে প্রবাসী বাংলাদেশি নাগরিকদের উদ্দেশে বলেছে, লকডাউনে কেবল জরুরি প্রয়োজনেই দেশে ফেরা যাবে। তবে দেশে ফিরতে আগ্রহীদের করোনা নেগেটিভ সনদ থাকতে হবে এবং দেশে ফিরে থাকতে হবে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে।