রোহিঙ্গা ফেরাতে বিশ্বব্যাংক বড় ভূমিকা রাখতে পারে : অর্থমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে বিশ্বব্যাংক একটি বড় ভূমিকা রাখতে পারে এবং এজন্য বিশ্বব্যাংকের সহায়তা চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

গতকাল শনিবার ওয়াশিংটনে বিশ্বব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে রোহিঙ্গা শরণার্থী বিষয়ক এক গোলটেবিল বৈঠকে এসব কথা বলেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

অর্থমন্ত্রীর আহ্বানের জবাবে এ বিষয়ে ইতিবাচক মনোভাব প্রকাশ করেছেন সংস্থাটির কর্তাব্যক্তিরা।

অর্থমন্ত্রী রোহিঙ্গা প্রসঙ্গে বলেন, ‘বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রাখাইনের বাসিন্দা রোহিঙ্গাদের নিজ দেশ মিয়ানমারে প্রত্যাবাসনের কোনো বিকল্প নেই। যে কোনো উপায়ে দ্রুততম সময়ের মধ্যে রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে বিশ্বব্যাংকের সহায়তা চাওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে বিশ্বব্যাংক একটি বড় ভূমিকা রাখতে পারে।’

বৈঠকে বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট হার্টউইগ শেফার, সরকারের অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব মনোয়ার আহমেদ, অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘কোনো অল্টারনেটিভ অ্যাকশন নেই, শুধু তাদের ফিরিয়ে নেন। আমরা বিশ্বাস করি বিশ্বব্যাংক বিশ্ববাসীর সঙ্গে আলাপ করে একটা পজেটিভ সিদ্ধান্ত নেবে। মিয়ানমার তাদের নিয়ে যাবে কিন্তু কবে নিয়ে যাবে সেই টাইমলাইন চাই আমরা।’

প্রাণভয়ে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে মানবিক কারণে আশ্রয় দেওয়া হলে এখন তার উচ্চমূল্য দিতে হচ্ছে জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সামাজিক বন্ধনসহ যেসব ক্ষতি হচ্ছে তা ডলার বা টাকার অংকে পরিমাপ করা সম্ভব নয়। তাই রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফিরে যাবে এটাই আমাদের প্রধান চাওয়া।’