রাজাকার-আলবদররা ‘স্বাধীনতা‘ ঠেকাতে পারেনি, তেমনিভাবে ‘বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য‘ও ঠেকাতে পারবে না

4
Social Share

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ যথাসময়ে সম্পন্ন করার দাবীতে আজ ২৮ নভেম্বর শনিবার বিকাল ৩ টায় দোলাইরপাড় চৌরাস্তায় আওয়ামীলীগ-এর সর্বস্তরের নেতাকর্মী ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ বঙ্গবন্ধুর সৈনিকদের উদ্যোগে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার সাবেক সহকারী একান্ত সচিব কৃষিবিদ ডঃ মোঃ আওলাদ হোসেন এর নেতৃত্বে ‘বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বাস্তবায়ন পরিষদ’এর ব্যানারে এক বিশাল মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।
মানববন্ধন কর্মসূচিতে ডঃ মোঃ আওলাদ হোসেন বলেন, ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীতাকারী যেমনিভাবে স্বাধীনতা ঠেকাতে পারেনি, ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে ২ লক্ষ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। তেমনিভাবে স্বাধীন বাংলাদেশে মহান মুক্তিযুদ্ধের মহানায়ক ‘বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য‘ হবেই হবে। কোন অপশক্তি ই ঠেকাইয়া রাখতে পারবে না। বঙ্গবন্ধুর সৈনিকরা বুকের রক্ত দিয়ে হলেও ‘বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য‘ স্থাপন করবেই করবে।
তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। রাষ্ট্রনায়ক জননেত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত দক্ষতার সাথে সাম্প্রতিককালের ভয়াবহ করোনা মহামারী মোকাবেলা করে সারাবিশ্বে প্রশংসা অর্জন করেছেন। ১৯৭১-এ মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে পরাজিত শত্রুরা দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকারের উন্নয়নে ঈর্ষান্বিত হয়ে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ বিরোধীতার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হেয় প্রতিপন্ন করার হীন চেষ্ঠা করছে। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময়ে যেমনিভাবে ধর্মের দোহাই দিয়ে স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছিল, তেমনিভাবে ভাস্কর্য ও মূর্তি সম্পর্কে ধর্মের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপনের বিরোধীতা করছে।
উক্ত মানববন্ধনে উপস্থিত স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলেন কদমতলী থানা আওয়ামীলীগ এর সভাপতি ৫২ এর সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মদ নাছিম মিয়া, যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ মুন্না, ৫৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত মুফতি ও সাধারণ সম্পাদক শরীফ মোহাম্মদ আলমগীর, ৪৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মঈনুদ্দীন চিস্তী, ৫১ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি কাজী ইমতিয়াজ আহমেদ, ঢাকা জেলা পরিষদ সদস্য শ্যামপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি আলমগীর হোসেন, ৫৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মহব্বত হোসেন, মহানগর দক্ষিণ মহিলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি কোহিনুর বেগম, সাংগঠনিক সম্পাদক ফেরদৌসী ইয়াসমিন পপি, কদমতলী থানা মহিলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক নুপুর সহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।
সভায় নেতৃবৃন্দ যে কোন মূল্যে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপন করার দৃঢ় প্রত্যয় ঘোষণা করেন এবং ঐ সকল ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেওয়ার জন্য সরকারের নিকট দাবী জানান।
নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, বিএনপি-জামাত জোট আওয়ামীলীগকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়ে ইসলামী দলগুলোর ব্যানারে সংযুক্ত হয়ে সরকারের বিরুদ্ধে এই জঘন্যতম ও ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রের পথ বেছে নিয়েছে। এ ব্যাপারে সরকারকে সজাগ থাকার আহবান জানানো হয়।