যে রকম পুরুষ জীবনে চেয়েছি, সে রকম পাইনি বলেই বিয়ে করিনি

Social Share

অভিনেত্রী শাহনাজ পারভিন দুলারী আশির দশক থেকে এখন পর্যন্ত খল চরিত্রে দাপটের সঙ্গে অভিনয় করে যাচ্ছেন। সুমিতা দেবী, মায়া হাজারিকা কিংবা রিনা খানের পর দুলারী হচ্ছেন একজন জনপ্রিয় খল অভিনেত্রী। প্রায় ৮ শতাধিক ছবিতে কাজ করেছেন তিনি। পেয়েছেন বহু পুরস্কার।

দুলারী সম্প্রতি পরিচালক মালেক আফসারীর ‘উল্টো চশমা’ নামে একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে তাঁর জীবনের বহু অজানা কথা সাধারণ দর্শকদের জন্য বলেছেন।

মালেক আফসারীর প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমার কোনো জীবনসঙ্গী নেই, আমি কোনো জীবনসঙ্গী চাইও না। বিয়ে করার মতো কাউকে পাইনি; তাই আমি বিয়ে করিনি, ব্যস। আমি যে রকম পুরুষ জীবনে চাই, সে রকম পাইনি বলতে গেলে। যে আমার জীবনে আসবে, তাকে আমার মনের মতো হতে হবে। আমাকে অভিনয় করতে দিতে হবে।

দুলারী বলেন,  প্রথমে আমি কমেডি দিয়েই অভিনয় শুরু করি। পাঁচ বছরে আমার ১৩০টি কমেডি ছবি রিলিজ হয়। এরপর আমি খল চরিত্র শুরু করি। এখনো সেটাই চলছে। তবে এর মাঝে আমি বাড়ি ফিরে গেলে আমার বাবা-মা আমাকে গ্রহণ করলেও আমার কাকারা আমাকে গ্রহণ করেননি। তাই তখন থেকেই আমি তাদের থেকে আলাদা।

এই অভিনেত্রী বলেন, ছোটবেলা থেকেই অভিনয় অনেক ভালো লাগত। দেখতাম- রাজ্জাক ভাই, শাবানা আপা, কবরী আপাকে অভিনয় করতে। তখন থেকেই আসছে অভিনয়ের প্রতি ঝোঁক। পঞ্চম শ্রেণিতে ওঠার পর একদিন স্কুল পালিয়ে ‘মালেকা বানু’র শুটিং দেখতে গিয়েছিলাম। এরপর বাড়িতে ফেরার পর মায়ের মার খেলাম। ওই মার খাওয়ার পর থেকেই মনে জিদ চেপে গেল- আমি অভিনয়ই করব। মূলত বান্ধবীর মামার হাত ধরেই আমার সিনেমায় আসা। কিছুদিন পর বাড়ি থেকে চম্পট! চলে আসি এফডিসিতে। সেখানে এসে পরিচালক সিরাজুল ইসলামের সঙ্গে দেখা হয়। আমি তাকে অনুরোধ করি; আমি তো আর বাড়ি ফিরে যেত পারব না, সুতরাং আপনি আমাকে কাজ দেন। তখন তিনিই আমাকে প্রথম কাজ দেন।

সম্প্রতি তিনি কাজ করেছেন পরিচালক কাজী হায়াত ও চিত্রনায়ক শাকিব খানের ‘বীর’ সিনেমায়।