যুক্তরাজ্যের গবেষকদের কোভিড-১৯ এর গুরুত্বপূর্ণ ওষুধ আবিষ্কার

Social Share

যুক্তরাজ্যের গবেষকরা বলেছেন, তারা ডেক্সামেথাসোন নামে একটি ওষুধ আবিষ্কার করেছেন, যা করোনা ভাইরাসে মৃত্যু হ্রাসে সহায়ক বলে প্রমাণিত হয়েছে। এটি সস্তা হওয়ার কারণে গরিব দেশগুলো এতে লাভবান হবে।

বিবিসি’র খবরে বলা হয়, এটি মৃত্যু ঝুঁকি কমায় বলে গবেষকরা জানিয়েছেন।
বার্তা সংস্থা রয়টার্স ইংল্যান্ডের চিফ মেডিকেল অফিসারের বরাত দিয়ে বলেছে, এটি এ যাবতকালে কোভিড-১৯ এর পরীক্ষায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফলাফল দিয়েছে। এটি বিশ্বব্যাপী আক্রান্ত মানুষের জীবন রক্ষা করবে।
গবেষকদলের প্রধান অধ্যাপক পিটার হরবি বিবিসিকে বলেছেন, ‘এখনও পর্যন্ত এটাই একমাত্র ওষুধ যা মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে পারে বলে দেখা যাচ্ছে এবং এই ওষুধ প্রয়েগে মৃত্যু ঝুঁকি উল্লেখযোগ্যহারে কমে। এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি।’
আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ওষুধটি ভাইরাসের বিরুদ্ধে কার্যকারিতা দেখার জন্য বিদ্যমান চিকিৎসায় বিশ্বের বৃহত্তম ট্রায়াল টেস্টের অংশ। ওষুধটি ইতোমধ্যে অন্যান্য ক্ষেত্রে বিভিন্ন প্রদাহ কমাতে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।
এই ওষুধ ব্যবহারে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ২০ জন রোগীর মধ্যে প্রায় ১৯ জন হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে সুস্থ হন এবং যারা হাসপাতালে ভর্তি আছেন তাদের মধ্যে বেশিরভাগই সুস্থ হন, তবে, কারো কারো জন্য ভেন্টিলেশনের প্রয়োজন হতে পারে।
জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এই স্বল্প মাত্রার স্টেরয়েড চিকিৎসা একটি যুগান্তকারী আবিষ্কার।
এই ওষুধ ব্যবহার করলে ভেন্টিলেটারে থাকা রোগীদের মৃত্যু ঝুঁকি এক তৃতীয়াংশ কমানো যায় এবং যাদের অক্সিজেন দিয়ে চিকিৎসা করা হচ্ছে তাদের ক্ষেত্রে মৃত্যুর হার এক পঞ্চমাংশ কমানো যাবে।
গবেষকরা বলেছেন, করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের চেষ্টায় মানুষের শরীরের প্রতিরোধ ব্যবস্থা যখন অতি সক্রিয় হয়ে ওঠে তখন শরীরের ভেতর যে ক্ষতিগুলো হয়, এই ওষুধ ডেক্সামেথাসোন সেই ক্ষতি কিছুটা প্রশমিত করতে পারে বলে তারা পরীক্ষায় দেখেছেন।
অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষকের তত্ত্বাবধানে ব্রিটেনে হাসপাতালের প্রায় ২ হাজার রোগীর ওপর এই পরীক্ষা চালানো হয়।